Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ম্যাজিশিয়ান আফিফের ম্যাজিকে কাতার সেরা

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

এক টিকিটে গতকাল কাতারের লুসাইল স্টেডিয়ামে দুই খেলা দেখেছেন দর্শকেরা। এএফসি এশিয়ান কাপের ফাইনাল দেখতে এসে বাড়তি বিনোদন পেয়েছেন তাঁরা। ফুটবল খেলা দেখতে এসে ম্যাজিশিয়ানের দেখাও পেয়েছেন স্টেডিয়াম ভর্তি দর্শকেরা। ম্যাজিশিয়ান বনে গিয়েছিলেন আকরাম আফিফ।

ফাইনালে এক, দুই করে তিনটি পেনাল্টি পেল কাতার! তিনটিকেই গোলে রূপ দিলেন আকরাম আফিফ। জর্ডানের রূপকথা থামিয়ে এশিয়ান ফুটবল শ্রেষ্ঠত্বের মুকুটও ধরে রাখল তার দেশ।

ফাইনালে হ্যাটট্রিক করে কাতারকে ৩-১ গোলের ব্যবধানে টানা দ্বিতীয় শিরোপা এনে দিয়েছেন আফিফ। হ্যাটট্রিকের তিনটি গোলই এসেছে পেনাল্টিতে। জর্ডানের বিপক্ষে প্রথম সফল স্পটকিকের পরেই দর্শকদের বাড়তি বিনোদন দিয়েছেন তিনি। খেলা দেখতে আসা ৮৫,০০০ দর্শককে ম্যাজিক দেখিয়েছেন ২৭ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড।

প্রথম গোল উদ্যাপনের সময় ডান পায়ের হুইজ থেকে একটি কার্ড বের করে ম্যাজিক দেখান আফিফ। কার্ডে লেখা ছিল ইংরেজি বর্ণ ‘এস’। ম্যাজিক দেখানোর সময় তাঁর এই উদ্যাপনের অর্থ তখন কেউ বুঝতে না পারলেও ম্যাচ শেষে ব্যাখ্যা করেছেন কাতারের ফরোয়ার্ড।

প্রথমবারের মতো আফিফের স্ত্রী খেলা দেখতে এসেছিলেন মাঠে। তাই স্ত্রীর আগমনকে স্বাগত জানাতে বনে গেলেন ম্যাজিশিয়ান। হ্যাটট্রিক এবং শিরোপাও স্ত্রীকেই উৎসর্গ করেছেন তিনি। তবে স্ত্রীর নামের প্রথম বর্ণ জানিয়ে দিলেও পুরো নাম বলেননি তিনি। ২৭ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড বলেছেন, ‘এস আমার স্ত্রীর নামের প্রথম বর্ণ। প্রথমবারের মতো সে স্টেডিয়ামে খেলা দেখতে এসেছে। আমার স্ত্রীকে সমস্ত পুরস্কার দিতে চাই।’

এবারের এশিয়ান কাপে ৮ গোল করে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন আফিফ। সঙ্গে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছেন তিনি।

পঞ্চম দল হিসেবে এশিয়ান কাপে একাধিকবার চ্যাম্পিয়ন হলো কাতার। এর আগে এই কৃতিত্ব আছে কেবল জাপান, সৌদি আরব, ইরান ও দক্ষিণ কোরিয়ার।

রন/ক্রী/০০১