Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড প্রস্তুত ?

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

আগামী নভেম্বর-ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপ । ভারতের মাটিতে ১০টি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে একদিনের বিশ্বকাপের ১৩তম আসর । যেখানে স্বাগতিক ভারতসহ আইসিসি র‍্যাংকিংয়ের সেরা আট দল খেলছে সরাসরি । আইসিসি ওয়ানডে সুপার লিগের ফলাফল বিচারেই সেরা আট দল খেলছে সরাসির ।

২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ সামনে রেখে আয়োজিত হয় ওয়ানডে সুপার লিগ । ২০২০ সাল থেকে শুরু হওয়া সুপার লিগের ম্যাচ চলেছে ২০২৩ সালের মে পর্যন্ত । ইংল্যান্ড আর আয়ারল্যান্ডের সিরিজ দিয়ে মাঠে গড়ায় সুপার লিগের ম্যাচ । শেষ হয় বাংলাদেশ আর আয়ারল্যান্ড সিরিজ দিয়ে ।

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে বাংলাদেশ সব সময়েই একদিনের ক্রিকেটে সমীহ জাগানিয়া দল হিসেবে পরিচিত । আইসিসি সুপার লিগেও নিজেদের সামর্থ্য দেখিয়েছে টাইগাররা । নিউজিল্যান্ড আর ইংল্যান্ডের পরেই তৃতীয় স্থানে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশ । এমনকি ২৪ ম্যাচ শেষ ইংল্যান্ডের সাথে বাংলাদেশের পয়েন্ট ছিল সমান ১৫৫ । কিন্তু রান রেটে বাংলাদেশ পিছিয়ে থাকায় পেয়েছে তৃতীয় স্থান । তবু ভারত , পাকিস্তান , দক্ষিণ আফ্রিকা আর অস্ট্রেলিয়ার মতো প্রতিষ্ঠিত শক্তিদের পেছনে ফেলা বাংলাদেশের জন্য অবশ্যই বড় পাওয়া ।

আফগানস্তানও পেয়েছে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগ । কিন্তু দুই সাবেক বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ আর শ্রীলংকাকে খেলতে হবে বাছাই পর্ব ।

ওয়ানডে পারফর্মেন্সের বিচারে আসন্ন বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন ক্রিকেটপ্রেমীরা । সাম্প্রতিক সময়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে আশানুরুপ পারফর্মেন্সের ভিত্তিতেই এমন আশা । এই মুহূর্তে বাংলাদেশ দলে কয়েকজন নিয়মিত পারফর্মার রয়েছে । অধিনায়ক তামিম ইকবাল খান তো অটো চয়েজ । এছাড়া সাকিব আল হাসান , লিটন দাস , নাজমুল হাসান শান্ত , মুশফিকুর রহিম আর তাওহিদ হৃদয়দের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে থাকার নিশ্চয়তা অনেকটাই দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ।

সাত নাম্বার পজিশনে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ নাকি আফিফ হোসেন ধ্রুব , সেটা নিয়ে আছে সংশয় । পাপন জানিয়েছেন , ব্যাটিংয়ের দিক থেকে বললে আফিফ হোসেন ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দুজনই থাকতে পারে।সাথে মেহেদি হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ, এবাদত হোসেনের দলে থাকাও প্রায় নিশ্চিত বলে মনে করছেন পাপন।

পাপন বলেছেন , ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বি চোট থেকে ফিরে আসার পর তেমন কোনো পারফর্ম করেনি। বোলিংয়ের কথা ভাবলে এগিয়ে থাকবে আফিফ হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। মাহমুদউল্লাহও হতে পারে। তবে ফিল্ডিংও যদি চান তাহলে আমার মনে হয় মোসাদ্দেক ও মাহমুদউল্লাহর চেয়ে ভালো হতে পারে আফিফ।

বিশ্বকাপ দলে ৭ নম্বর পজিশন নিয়ে বোর্ড সভাপতি আরও বলেন, কোনো কারণে পাঁচ বোলার নিয়ে খেললে একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান খেলানোর সুযোগ তৈরি হয়। ওখানে এখন স্কোয়াডে আছে ইয়ারিসর আলী রাব্বি। স্কোয়াডে নেই কিন্তু যেকোনো সময় ঢুকতে পারে আফিফ, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক।

তিনি আরও বলেন, যদি আমি পাঁচ বোলার নিয়ে খেলি কোনো কারণে একটা বোলার চোটে পড়লে বলটা করবে কে? এ জন্য অলরাউন্ডার পেলে ভালো হয়। প্রধান নির্বাচক কী করবে আমি জানি না। আমি আমার কথা বলছি।

আহাস/ক্রী/০০৪