Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

অবৈধ খেলোয়াড় মাঠে নামিয়েছে রিয়েল মাদ্রিদ !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

সময়টা ভাল যাচ্ছে না রিয়েল মাদ্রিদের । ইতোমধ্যে রিয়েল মাদ্রিদের হাত ফস্কে বেরিয়ে গেছে স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা । বিদায় নিতে হয়েছে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকেও । ইউরোপের সেরা ক্লাব ফুটবল আসরের সেমি ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে রিয়েলকে রীতিমত বিধ্বস্ত করেছে ম্যানচেস্টার সিটি । চার গোলের বড় হারের লজ্জা নিয়ে শুধু ইত্তিহাদ স্টেডিয়াম ছাড়ে নি রিয়েল , শেষ হয়েছে তাদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ অভিযান ।

এদিকে , লা লিগা শিরোপা হারাবার পর রিয়েলের সামনে নতুন সংকট । স্পেনের নীচের সারির ক্লাব গেটাফে লস ব্লাংকোসদের বিপক্ষে এসেছে গুরুতর অভিযোগ । অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হলে গেটাফের বিপক্ষে পাওয়া জয় পরিণত হতে পারে পরাজয়ে । কাটা হতে পারে লিগে রিয়েলের তিন পয়েন্ট । তাতে রিয়েল মাদ্রিদকে নেমে যেতে হতে পারে তৃতীয় স্থানে ।

গত রবিবার (১৪ মে) লা লিগায় মুখোমুখি হয়েছিল রিয়েল মাদ্রিদ আর গেটাফে । স্যান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে কোনরকমে ম্যাচটি ১-০ গোলে জিতেছে লস ব্লাংকোসরা । ম্যাচের ৭০ মিনিটে একমাত্র গোলটি করেছিলেন স্প্যানিশ উইঙ্গার মার্কো অ্যাসেন্সিও । সেই মার্কো অ্যাসেন্সিওকে নিয়েই এসেছে অভিযোগ ।

খেলার ৮৪ মিনিটে অ্যাসেন্সিওকে উঠিয়ে বদলী হিসেবে রিয়েল মাদ্রিদ নামায় আলভারো ওদরিওজোলাকে । সাইড লাইন থেকে সহকারী রেফারি সেই নির্দেশনাই দিয়েছিলেন । কিন্তু অ্যাসেন্সিও মাঠ ছাড়েন নি । মাঠ ছাড়েন এডুয়ার্ডো কামাভিঙ্গা ।

আসলে কামাভিঙ্গা চোট পাওয়ায় শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদলী করে রিয়েল । যদিও চতুর্থ রেফারি অদ্রিওজোলাকে নামানোর সময় অ্যাসেন্সিওকে ডেকে পাঠান। অ্যাসেন্সিওও উঠে যাওয়ার পথেই ছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে রেফারি তাকে থামিয়ে দেন। মাঠ ছাড়েন কামাভিঙ্গা । ম্যাচে এটিই ছিল রিয়ালের পঞ্চম ও শেষ বদলি। অ্যাসেন্সিও বাকি সময় মাঠেই কাটান।

বিষয়টি নিয়ে শুরুতে নাড়াচাড়া হয় নি । দুই পক্ষ মেনে নিলে এই ঘটনায় কোন ঝামেলা হওয়ার কথা ছিল না । কিন্তু গেটাফে হঠাৎ করেই অভিযোগ করে বসেছে রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের (আরএফএফএফ) কমপিটিশন কমিশনে । তাদের দাবী , রিয়েল মাদ্রিদ খেলোয়াড় বদলের নিয়ম মানে নি । মাঠে ‘অযোগ্য’ অ্যাসেন্সিওকে খেলিয়েছে । যাকে তুলে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল চতুর্থ রেফারি অভিযোগের প্রমাণ হিসেবে লা লিগা কমিটির কাছে ভিডিও ফুটেজ জমা দিয়েছে গেটাফে । তাদের অভিযোগ , অদ্রিওজোলা মাঠে নামার সাথে সাথে অ্যাসেন্সিওর সাবস্টিটিউশন কার্যকর হয়ে গেছে । বাকী সময় তাঁর মাঠে থাকা ছিল অবৈধ ।

গেটাফের আনুষ্ঠানিক অভিযোগের বিষয়টি রিয়াল মাদ্রিদকে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে জবাব দিতে বলা হয়েছে মাদ্রিদের ক্লাবটিকে।

ইএসপিএন জানিয়েছে , গেটাফে রেলিগেশন থেকে বাঁচতে মরিয়া । ৩৪ পয়েন্ট নিয়ে তারা লিগ টেবিলের ১৮তম স্থানে রয়েছে । ৩৫ পয়েন্ট পাওয়া ভায়াদোলিদ ১৭তম স্থানে । নিজেদের নিরাপদ রাখতে গেটাফে রিয়েল মাদ্রিদের বিপক্ষে তিন পয়েন্ট পাওয়ার দাবী তুলেছে । অভিযোগ সত্যি প্রমাণিত হলে রায় যাবে রিয়েলের বিপক্ষেই । তাদের জয় কেঁড়ে নেয়া হবে । গেটাফেকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে ৩-০ গোলে ।

লা লিগার শিরোপা নিস্পত্তি হয়ে গেছে । চার ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা জিতেছে বার্সেলোনা । তবে দ্বিতীয় স্থানের জন্য লড়াই হচ্ছে দুই নগর প্রতিপক্ষ রিয়েল মাদ্রিদ আর এথলেটিকো মাদ্রিদের মধ্যে । ৩৪ ম্যাচে রিয়েলের পয়েন্ট ৭১ আর এথলেটিকোর ৬৯ । গেটাফের বিপক্ষে তিন পয়েন্ট হারালে রিয়েল নেমে যাবে তিনে ।

রিয়েল মাদ্রিদের বিপক্ষে অবৈধ খেলোয়াড় খেলাবার অভিযোগ নতুন কিছু না । ২০১৫ সালে রাশিয়ান ডেনিস চেরিসেভকে খেলিয়ে রিয়েল নিষিদ্ধ হয়েছিল কোপা ডেল রে টুর্নামেন্ট থেকে । পূর্ববর্তী মৌসুমে লাল কার্ড থাকায় সাসপেন্ড ছিলেন চেরিসেভ । কিন্তু ভুলবশত রিয়েল পরের মৌসুমে কাদিজের বিপক্ষে মাঠে নামিয়ে দেয় রাশিয়ান তারকাকে । ম্যাচে একটি গোলও করেন চেরিশেভ। এরপরই স্প্যানিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কাছে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করে কাদিজ।

কাদিজের অভিযোগে সাজা পায় রিয়েল । ম্যাচে বিজয়ী ঘোষণা করা হয় কাদিজকে । রিয়েলকেও বহিষ্কার আর জরিমানার শাস্তি প্রদান করে লিগ কমিটি । দেখার বিষয় , গেটাফের অভিযোগে রিয়েল মাদ্রিদকে কোন শাস্তি ভোগ করতে হয় ।

আহাস/ক্রী/০০২