Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাড়তি নজরে ওরা তিনজন

আহসান হাবীব সুমন/ক্রীড়ালোকঃ

২০ নভেম্বর থেকে মাঠে গড়াচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ।  কাতারে অনুষ্ঠিতব্য  বিশ্বকাপে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো , লিওনেল মেসি , করিম বেঞ্জেমা , লুকা মদ্রিচ , রবার্ট লেভেন্ডস্কি ,  লুইজ সুয়ারেজ আর থমাস মুলাররা অংশ নিচ্ছেন মহাতারকা হিসেবে । কিন্তু বিশ্বকাপ হচ্ছে সেই আসর , যেখানে প্রতিবার জন্ম নেয় নতুন কিছু তারকা । যেমন- গত বিশ্বকাপ খেলে বাজিমাৎ করা কিলিয়ান এমবাপ্পে এখন ফুটবল বিশ্বের অন্যতম তারকা । ২০২২ সালেও নিশ্চিতভাবেই দুর্দান্তভাবে নিজেকে মেলে ধরা  কেউ চলে আসবেন পাদপ্রদীপের আলোয় । কিন্তু কে বা কারা হবেন সেই তারকা ? 

রিচার্লিশনঃ 

শুরু করা যাক ব্রাজিলিয়ান রিচার্লিশনকে দিয়ে । বয়স মাত্র ২৫ বছর । কিন্তু তিনি এখন পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিল স্কোয়াডে একনাম্বার ফরোয়ার্ড । কাতার বিশ্বকাপে কোচ টিটের একাদশে ভিনিসিয়াস জুনিয়র , রাফিনহা আর নেইমার জুনিয়রদের সাথে আক্রমণভাগের মুল হাতিয়ার থাকবেন তিনি ।

রিচার্লিশনের পেশাদার ক্যারিয়ার শুরু ২০১৪-১৫ মৌসুমে ব্রাজিলিয়ান ক্লাব আমেরিকান মিনেইরোর হয়ে । পরের মৌসুমেই পাড়ি জমান ব্রাজিলের অন্যতম সেরা ক্লাব ফ্লেমিঙ্গোতে । সেখানেও খেলেছেন এক মৌসুম । তারপর  তাঁর ঠিকানা ইংল্যান্ডের ওয়াটফোর্ড । তবে রিচার্লিশন ২০১৮-২২ মৌসুম নিজের জাত চিনিয়েছেন এভারটনে । প্রিমিয়ার লীগের মাঝারীমানের দলে তিনি ছিলেন সর্বেসর্বা । চার মৌসুমে ১৫২ ম্যাচে করেছেন ৫৩ গোল । ২০২২ সালের জুলাইয়ে যোগ দিয়েছেন ইংলিশ লীগের বড় ক্লাব টটেনহ্যামে । এখন পর্যন্ত ১৫ ম্যাচে গোলের সংখ্যা ২টি । এসিস্ট তিনটি । 

২০১৮ সালে ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে রিচার্লিশনের অভিষেক । করেছেন ৩৮ ম্যাচে ১৭ গোল । ব্রাজিলের হয়ে জিতেছেন কোপা আমেরিকা আর অলিম্পিক সোনা । ২০১৯ সালের কোপায় পেরুর বিপক্ষে ফাইনালে রবার্ট ফিরমিনিওর বদলী হিসেবে নেমে দলের শেষ গোলটি করেন । ফাইনালে ব্রাজিলের জয় এসেছিল ৩-১ গোলে । সেই ফির্মিনিও নেই ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে , কিন্তু রিচার্লিশন আছেন । ২০২০ অলিম্পিকে জার্মানির বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেই হ্যাট্রিক করেন । পাঁচ গোল করে ছিলেন আসরের সেরা গোলদাতা ।

ব্রাজিলের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা স্ট্রাইকার বলা হয় রোনালদো নাজারিওকে। নাজারিওর পর ব্রাজিলের নাম্বার নাইন পজিশনটি আর কোন প্লেয়ারই এত ভালো করে যত্ন করতে পারেনি। রাশিয়া বিশ্বকাপে এই পজিশনে খেলেছিলেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। কিন্তু চূড়ান্ত হতাশা উপহার দিয়েছিলেন তিনি। কাতার বিশ্বকাপে এই পজিশনে হয়তো খেলতে যাচ্ছেন রিচার্লিশন। কিছুদিন আগে ব্রাজিল কোচ টিটে জানিয়েছেন , ‘ব্রাজিলের নাম্বার নাইন পজিশনের জন্য আমার চিন্তায় সর্বপ্রথম রয়েছে রিচার্লিশন।’

সেপ্টেম্বরে ব্রাজিলের সর্বশেষ দুইটি প্রীতি ম্যাচে রিচার্লিশন খেলেছেন নাম্বার নাইন পজিশনে । আসন্ন বিশ্বকাপে রিচার্লিশনের কার্যকারিতার উপর ব্রাজিলের সফলতা নির্ভর করছে  অনেকটা ।

রাফায়েল লিয়াওঃ

পর্তুগালের ২২ বছর বয়সী রাফায়েল লিয়াও এসি মিলানের হয়ে খেলছেন উইঙ্গার হিসেবে । খেলতে সক্ষম ফরোয়ার্ড হিসেবেও । তবে , পর্তুগাল দলে যেহেতু সর্বকালের সেরা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো আছেন আক্রমণভাগের নেতৃত্বে , তাই লিয়াও উইঙ্গার হিসেবেই রাখবেন ভুমিকা । ২০২১ সাল থেকে পর্তুগীজ দলের হয়ে ১১ ম্যাচ খেলে কোন গোলের দেখা পান নি । তবে , কাতার বিশ্বকাপ হতে পারে তাঁর আন্তর্জাতিক ফুটবলে জায়গা করে নেয়ার মঞ্চ ।

রোনালদোর মতো লিয়াওয়ের শুরুটাও স্পোর্টিং লিসবনেের ‘বি’ দল থেকে । একই দলের হয়ে পেশাদার অভিষেক ২০১৭-১৮ মৌসুমে । পরের মৌসুমে কেটেছে ফ্রান্সের লিলে । ২০১৯ সাল থেকে এসি মিলানেই তাঁর উত্থান ।

এখন পর্যন্ত এসি মিলানের হয়ে ১৩৫ ম্যাচে লিয়াওয়ের গোলের সংখ্যা ৩৪ । সর্বশেষ মৌসুমে এসি মিলানের সিরি ‘এ’ জয়ে রেখেছেন বড় ভুমিকা । করেছেন ছয় গোল আর ছয় এসিস্ট । পেয়েছেন সিরি ‘এ’ ফুটবলের বর্ষসেরা ফুটবলারের তকমা । গতি আর সৃজনশীল ক্রসের জন্য তিনি যে কোন দলের আতংক । চলতি মৌসুমেও ২০ ম্যাচে ৭ গোল করা  হয়ে গেছে তাঁর । সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এই মৌসুমে তাঁর এসিস্ট সংখ্যা ৯টি । বোঝাই যাচ্ছে , দিনদিন ক্ষুরধার হচ্ছেন এই উইঙ্গার ।

কাতার বিশ্বকাপে পর্তুগাল স্কোয়াডে লেফট উইঙ্গার পজিশনে আছেন রিকার্ডো হোর্তা আর লিয়াও । এই ক্ষেত্রে কোচ ফার্নান্দো স্যান্তস নিশ্চিতভাবেই সেরা একাদশে বেছে নেবেন লিয়াওকে । বিশ্বকাপে লিয়াও সেরা কিছু দেখাবেন , এটা নিশ্চিত ।

কিংসলে কোম্যানঃ

২৬ বছর বয়সী ফ্রান্স ফরোয়ার্ডকেও রাখতে হবে হিসেবে । ২০১৫ সাল থেকে কোচ দিদিয়ের দেশাম্প তাঁকে নামিয়ে দিচ্ছেন সুযোগ পেলেই । দেশের জার্সিতে ৪০ ম্যাচে তাঁর গোলের সংখ্যা ৫টি । ২০১৬ সালের ইউরোতে ছিলেন দ্বিতীয় সেরা উদীয়মান তারকা । সেরা হয়েছিলেন শিরোপাজয়ী পর্তুগালের রেনাটা সাঞ্চেজ । নিজ দেশের সবচেয়ে বড় ক্লাব পিএসজিতে তাঁর পেশাদার অভিষেক । খেলেছেন ইটালির জুভেন্টাসে । ২০১৭ সাল থেকে আছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখে ।

রাইট উইঙ্গার হিসেবে বায়ার্ন মিউনিখে ২৪৫ ম্যাচে ৪৯ গোল করেছেন কোম্যান । জাতীয় দলে তাঁর পজিশনে আছেন উসমান ডেম্বেলে । তবে কাতারে প্রথম একাদশে তিনিই হয়ত থাকবে দেশাম্পের মুল পছন্দ । সেই ক্ষেত্রে ফ্রান্সের হয়ে নতুন তারকা হিসেবে কোম্যান উঠে আসবেন না , সেটা কেউ বলতে পারে না ।

আহাস/ক্রী/০০১