Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

মাহমুদুল্লাহ নেই , শান্ত কেন দলে ?

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

আসন্ন আইসিসি টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) । সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বিশ্বকাপ খেলবে টাইগাররা । যেখানে ডেপুটি হিসেবে থাকবেন নুরুল হাসান সোহান ।

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে স্বাভাবিকভাবেই নেই তামিম ইকবাল আর মুশফিকুর রহিম । দুইজনেই আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন । এছাড়া বাদ পড়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ । যা নিয়ে চলছে বেশ সমালোচনা । অবশ্য চলতি বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পরেই অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন বাংলাদেশের এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার । জায়গা হারিয়েছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজেও । পরে সোহানের ইনজুরিতে আবার জায়গা ফিরে পান জিম্বাবুয়ে সিরিজের মাঝপথে । খেলেছেন এশিয়া কাপেও । কিন্তু সুযোগ পান নি বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ।

জানা গেছে , বাংলাদেশের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর শ্রীধরণ শ্রীরামের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনায় নেই রিয়াদ । সেই কারণেই তাকে বাদ দেয়া দেয়া হয়েছে বিশ্বকাপ স্কোয়াড থেকে । এই নিয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানিয়েছেন , ‘ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের প্রতি আমাদের পূর্ণ সম্মান আছে। অনেক ভালো ভালো ম্যাচ জিতিয়েছে সে। আমাদের নতুন টেকনিক্যাল কনসালট্যান্ট (শ্রীধরন শ্রীরাম) এসেছে, সে একটা পরিকল্পনা আমাদের দিয়েছে। আগামী এক বছরের জন্য যে পরিকল্পনায় আমরা এগুচ্ছি, সেটার একটা আলাদা দিকনির্দেশনা আছে। টিম ম্যানেজম্যান্টের সবার সম্মতিক্রমে রিয়াদকে বাদ দেওয়া হয়েছে।’

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে অর্ধশতক করেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। এরপর থেকে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে ফর্মটা ভালো যাচ্ছে না ডানহাতি এ ব্যাটারের।

বিশ্বকাপের পর থেকে এ পর্যন্ত ১১ ম্যাচে তার গড় মাত্র ১৬.৫৪। আর স্ট্রাইক রেট ১০২.৮২। সদ্য শেষ হওয়া এশিয়া কাপের দুই ম্যাচেও মেটাতে পারেননি প্রত্যাশা। ২০০৭ সালে অভিষেকের পর মাহমুদউল্লাহ এ পর্যন্ত খেলেছেন ১২১টি ম্যাচ। যা দেশের হয়ে সর্বোচ্চ।

এশিয়া কাপের আগে বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয় রাসেল ডোমিঙ্গোকে । তার জায়গায় দায়িত্ব পান আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু আর অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের হয়ে কাজ করা শ্রীরাম । যদিও তিনি প্রধান কোচ নন , কিন্তু টেকনিক্যাল ডিরেক্টর পদে তার পরিকল্পনাতেই চলবে বাংলাদেশ দল ।

মাহমুদুল্লাহর প্রসঙ্গে শ্রীরাম জানিয়েছেন , ‘ মাহমুদুল্লাহ বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশী টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলেছে । সে অনেকটা মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো । সে ৬ নম্বরে ব্যাট করত, ধোনি যেমন করত ভারতীয় দলে। সে ম্যাচ শেষ করে আসতো। ধোনিও তো আজীবন চালিয়ে যেতে পারেনি, তাই না? কোন খেলোয়াড়ের পর কে আসবে এই পরিকল্পনা আপনাকে করতে হবে। মাহমুদউল্লাহর বড় দায়িত্বটা কে নিতে পারে এটা ভাবার সঠিক সময় এখনই। তার জায়গায় নতুনদের না খেলালে তার বিকল্পও আমরা পাব না।’

এদিকে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত । গেল কয়েক বছরে সুযোগ পেয়েও নিজের যোগ্যতার প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন। ৯ ম্যাচে ১৮.৫ গড়ে ১০৪.২৩ স্ট্রাইক রেটে করেছেন মাত্র ১৪৮ রান। সবশেষ টি-টোয়েন্টি তিনি খেলেছিলেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলতি বছরের ২ আগস্ট। সেই শেষ ম্যাচে চার নম্বরে খেলতে নেমে শান্ত ২০ বলে করেছিলে ১৬ রান।

নান্নু জানিয়েছেন , বাংলাদেশ স্কোয়াডে ব্যাক-আপ ওপেনার হিসেবে শান্তকে নেয়া হয়েছে । বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলে প্রতিষ্ঠিত ওপেনার বলতে শুধু জায়গা পেয়েছেন লিটন দাস। তাকেও আবার টি২০ বিশ্বকাপে চারে খেলানোর পরিকল্পনা আছে টিম ম্যানেজমেন্টের। মেহেদী হাসান মিরাজ এবং সাব্বির রহমানই ওপেনিংয়ে তাই ভরসা টাইগারদের। কোনো কারণে তারা ব্যর্থ হলে সেখানে কাউকে তো লাগবে। এ কারণে দলে শান্ত।

নান্নু আরও জানান , ‘এখন পর্যন্ত ঘরোয়া টি২০ তে ৯৫ ম্যাচ খেলে দুটি শতকের সঙ্গে ছয়টি ফিফটি রয়েছে শান্তর। এই দুই শতক বিবেচনায় বিশ্বকাপের দলে ঠাঁই হয়েছে তার। আন্তর্জাতিক মঞ্চে এই ফরম্যাটে তো আমরা সবাই স্ট্রাগল করছি। কিন্তু আপনি বিপিএলের রেকর্ডটা দেখেন শান্তর। আমাদের ডোমেস্টিকে যে কয়জন ক্রিকেটার রয়েছে, সেখানে তার পারফরম্যান্স কিন্তু খারাপ না। ’

বিশ্বকাপের স্কোয়াড ঘোষণার পর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন , ‘ ‘একটা জিনিস পরিষ্কারভাবে বলছি, আমরা এখন যা করছি তা এই বিশ্বকাপের জন্য নয়। এই বিশ্বকাপকে টার্গেট করে কিছু করলে হবে না। আপনাকে সামনের বিশ্বকাপকে টার্গেট করে কিছু করতে হবে। এমন কোনো কোচ নেই, এমন কোনো বোর্ড নেই যে আপনাকে রাতারাতি টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে সব ঠিক করে দেবে। এত দিন যা হয়েছে, হয়েছে। আপনাকে লং টার্মে চিন্তা করতে হবে। নেক্সট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য দল তৈরি করছি আমরা। ’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডঃ

সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস, আফিফ হোসেন ধ্রুব, সাব্বির রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, নুরুল হাসান সোহান (সহ-অধিনায়ক), নাসুম আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, ইয়াসির আলি চৌধুরী, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, এবাদত হোসেন চৌধুরী, নাজমুল হোসেন শান্ত ও হাসান মাহমুদ।

রিজার্ভ: শরিফুল ইসলাম, রিশাদ হোসেন, শেখ মেহেদি হাসান ও সৌম্য সরকার।

আহাস/ক্রী/০০৫