Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ব্রাজিলকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই !

আহসান হাবীব সুমন/ক্রীড়ালোকঃ

আফ্রিকার ‘অদম্য সিংহ’ নামে পরিচিত ক্যামেরুনের ফুটবল দল । যাদের ভয়-ডরহীন খেলা ৯০ দশকের শুরু থেকেই মন কেড়েছে ফুটবল ভক্তদের । যদিও সাম্প্রতিক সময়ে আফ্রিকার দেশটি কিছুটা হলেও পিছিয়ে পড়েছে । কিন্তু ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপে সিংহের মতো গর্জন করেই খেলতে যাচ্ছে ক্যামেরুন । এমনকি , একই গ্রুপে থাকা পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিলকেও পাত্তা দিচ্ছে না দলটি ।

কাতার বিশ্বকাপে আফ্রিকা থেকে ঘানা , সেনেগাল , মরক্কো আর তিউনিশিয়ার সঙ্গে যাচ্ছে ক্যামেরুন । আফ্রিকা থেকে বিশ্বকাপে নাম লেখানো সহজ কাজ না । প্রতি গ্রুপে চার দল নিয়ে ১০ গ্রুপের শীর্ষ দলকে খেলতে হয়েছে প্লে-অফ । যেখান থেকে পাঁচটি দেশ সুযোগ পেয়েছে বিশ্বকাপে । ‘ডি’ গ্রুপের শীর্ষস্থান পাওয়া ক্যামেরুন প্লে-অফে আলজেরিয়াকে পেছনে ফেলে পেয়েছে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট । সব মিলিয়ে অষ্টমবারের মতো বিশ্ব ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসরে খেলতে চলেছে ক্যামেরুন ।

কাতারে ‘জি’ গ্রুপে ক্যামেরুনের প্রতিপক্ষ ব্রাজিল , সুইজারল্যান্ড আর সার্বিয়া । র‍্যাংকিং বিবেচনায় ‘জি’ গ্রুপের সবচেয়ে পেছনে ক্যামেরুন । ব্রাজিল আছে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে । সুইজারল্যান্ড ১৬তম আর সার্বিয়া ২৫তম অবস্থানে । সেখানে ক্যামেরুনের অবস্থান ৩৮তম । তাই বিশ্বকাপ শুরুর আগে ‘জি’ গ্রুপ থেকে নক আউট পর্বে ওঠার প্রশ্নে ক্যামেরুনকে অনেকেই হিসেবে ধরছেন না ।

তবে, অধিনায়ক ভিনসেন্ট আবুবকর ক্যামেরুনকে নিয়ে আছেন ভিন্ন চিন্তায় । তিনি জানিয়েছেন , ‘ আমরা কঠিন গ্রুপে পড়েছি , এটা সত্যি । কিন্তু এটা নিয়ে আমরা চিন্তিত না । বিশ্বকাপ মানেই কঠিন প্রতিযোগিতা । আমরা শুধু গ্রুপ পর্ব পেরুতে চাই না । বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নটাও দেখার মতো সাহস আমাদের আছে!’

কাতার বিশ্বকাপে ২৪ নভেম্বর সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হবে ক্যামেরুনের । পরবর্তী ম্যাচ ১৮ নভেম্বর সার্বিয়ার বিপক্ষে । আর গ্রুপের শেষ ম্যাচে ব্রাজিলের বিপক্ষে ক্যামেরুনের লড়াই ২ ডিসেম্বর ।

ব্রাজিলের সাথে মোকাবেলা নিয়ে আবুবকর জানান , ‘ ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে আমরা মোটেও চিন্তিত না । কারণ এই ব্রাজিল অতীতের মতো শক্তিশালী না । হ্যাঁ , তাদের কিছু ভাল ফুটবলার আছে । কিন্তু বিশ্বকাপ জয় করার মতো দল না ব্রাজিল । ব্রাজিলের এই দলে সমন্বয়ের অভাব আছে । ফুটবল দলগত খেলা । সমঝোতার অভাব থাকা দল নিয়ে বিশ্বকাপের মতো আসরে বেশিদুর যাওয়া সম্ভব না । আমরা চেষ্টা করলে ব্রাজিলকে রুখে দিতে পারব।’

আবুবকরের কথা একেবারে ভিত্তিহীন না । কারণ ব্রাজিল দলে মধ্যমাঠের সাথে আক্রমণভাগের কোন সম্নবয় নেই । ফ্রেড , লুকাস পাকুইতাদের নিয়ে ব্রাজিলের মধ্যমাঠ কোন অবস্থাতেই বিশ্বমানের না । ব্রাজিলের নেই একজন বিশ্বমানের ফরোয়ার্ড । রিচার্লিশন , গ্যাব্রিয়েল হেসুস , রবার্ট ফিরমিনোদের নিয়ে বিশ্বকাপ জয় করা যাবে – এমন বিশ্বাস অনেকের নেই । শুধু নেইমার জুনিয়র আর ভিনিসিয়াসদের দিয়ে এই দল কতদূর যাবে – সেটা নিয়ে আছে প্রশ্ন ।

অবশ্য বিশ্বকাপে ব্রাজিল কি করবে , সেটা তাদের বিষয় । কিন্তু আবুবকরের দলও খুব ভাল অবস্থায় নেই । সর্বশেষ ২০২১ সালের আফ্রিকান নেশন্স কাপে তারা তৃতীয় হয়েছে । পাঁচবারের আফ্রিকাসেরা ক্যামেরুনের শেষ শিরোপা এসেছিল ২০১৭ সালে । এছাড়া ১৯৯০ সালের বিশ্বকাপ ছাড়া ক্যামেরুন কখনও গ্রুপ পর্বের বাঁধা পেরুতে পারে নি । সেবারেই কোয়ার্টার ফাইনালে খেলে আফ্রিকার অদম্য সিংহরা চমকে দিয়েছিল সবাইকে ।

১৯৯০ সালের বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছিল ক্যামেরুন । সেবার তারা আরও হারিয়েছিল রোমানিয়া এবং সোভিয়েত ইউনিয়নকে । যে দুইটি দল ছিল দারুণ শক্তিশালী । নক আউট পর্বেও ক্যামেরুন হারিয়ে দেয় কলম্বিয়াকে । আর কোয়ার্টার ফাইনালের বিতর্কিত ম্যাচে দুর্দান্ত লড়াই করেও হারতে হয় ইংল্যান্ডের কাছে । দুইটি পেনাল্টির সহায়তায় শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড ৩-২ গোলে হারায় অদম্য ক্যামেরুনকে ।

কোন বিশ্বকাপে টানা চারটি জয় আর কখনও পায় নি ক্যামেরুন । টানা দুরের কথা , পরবর্তী কোন বিশ্বকাপের কোন ম্যাচই জিততে পারে নি ক্যামেরুন । সাতটি ম্যাচ ড্র করেছে বিশ্বকাপ ইতিহাসে । হেরেছে ১২ ম্যাচ । এক সময় ক্যামেরুন দলে রজার মিলা , রবার্ট সং , স্যামুয়েল ইতো , প্যাট্রিক এমবোমা , ওমাম বায়িকদের মতো ফুটবলার খেলেছেন । সেই হিসেবে বর্তমান স্কোয়াডে বড় তারকা নেই বললেই চলে ।

ক্যামেরুনের বর্তমান অধিনায়ক আবু বকরই দলের সবচেয়ে বড় তারকা । ২০২১ সালের আফ্রিকান নেশন্স কাপে আট গোল করে হয়েছিলেন সেরা গোলদাতা । বর্তমান স্কোয়াডে সবচেয়ে ৮৭ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার । দেশের হয়ে গোল আছে ৩৩টি । ২০২১ সাল থেকে সৌদি আরবের আল নাসের ক্লাবে খেলছেন তিনি । মধ্যপ্রাচ্যের আবহাওয়ার সাথে তিনি পরিচিত । তাই কাতারেও তিনি ভরসা দেবেন দলকে ।

এছাড়া বর্তমান স্কোয়াডে বায়ার্ন মিউনিখের এরিক ম্যাক্সিম চুপো মোটিং , অলিম্পিক লিওর কার্ল একাম্বি , ন্যাপলির আন্দ্রে আগুইসারা কিছুটা তারকা তকমা পেয়েছেন । অবশ্য বিশ্বকাপ সব সময়েই নতুন তারকা তৈরি করে । ক্যামেরুনের তেমন কেউ তৈরি হবে কিনা সেটা সময়েই বলে দেবে ।

নিজের দলের উপর পুরো ভরসা রেখে আবুবকর জানিয়েছেন , ‘ ব্রাজিল কেন ,  আমাদের কাউকে ভয় পাওয়ার কিছু নেই । আমরা সঙ্গবদ্ধ আছি । আমাদের মাঠের খেলাই প্রমাণ করবে আমরা কতদূর যাব। ‘

ব্রাজিলের বিপক্ষে  বিশ্বকাপে কখনও জয় পায় নি ক্যামেরুন । হেরেছে ১৯৯৪ আর ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে । তবে ২০০৩ সালের কনফেডারেশন্স কাপে ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল ক্যামেরুন ।  সব মিলিয়ে দুই দলের ৬বারের  দেখায় ৫টি জয় আছে ব্রাজিলের । 

আহাস/ক্রী/০০২