Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

এশিয়া কাপের দলে সাব্বির আর সৌম্য সরকার ?

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

আগামী ২৭ আগস্ট থেকে মাঠে গড়াচ্ছে এশিয়া কাপ ক্রিকেটের লড়াই । ছয়টি দেশ নিয়ে এবারের এশিয়া কাপ ক্রিকেটের আয়োজক সংযুক্ত আরব আমিরাত । যদিও শুরুতে আয়োজন হবার কথা ছিল শ্রীলংকার । কিন্তু অর্থনৈতিক মন্দা আর রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে দ্বীপ দেশটি সরে এসেছে আয়োজকের দায়িত্ব থেকে ।

সর্বশেষ দুটি এশিয়া কাপের ফাইনালে খেলা বাংলাদেশ এখনও স্কোয়াড ঘোষণা করে নি । যদিও ইতোমধ্যে ভারত আর পাকিস্তান নিজেদের স্কোয়াড ঘোষণা করে দিয়েছে । বাংলাদেশকে আগামী ১১ আগস্টের মধ্যে দল ঘোষণা করতে হবে । নানাবিধ সমস্যায় নিজেদের স্কোয়াড ঘোষণায় তিনদিনের সময় বাড়িয়ে নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ‘বিসিবি’ ।

এশিয়া কাপের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা নিয়ে আসলেই বিপাকে আছে বিসিবি । ইনজুরির কারণে দলের অনেক নিয়মিত সদস্যের এশিয়া কাপে খেলা এখনও অনিশ্চিত । আর নুরুল হাসান সোহানের জন্য তো শেষই হয়ে গেছে এশিয়া কাপ । জিম্বাবুয়ের মাটিতে টি-টুয়েন্টি সিরিজে প্রথমবারের মত বাংলাদেশের অধিনায়ক নির্বাচিত হয়েছিলেন সোহান । কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচেই আঙুলের ইনজুরিতে ছিটকে গেছেন খেলা থেকে । আঙুলের অস্ত্রোপচারের জন্য তিনি এখন সিঙ্গাপুরে ।

এদিকে , ওয়ানডে সিরিজে ইনজুরিতে পড়েছেন লিটন দাস । হারারেতে স্বাগতিকদের সাথে প্রথম একদিনের ম্যাচে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির শিকার তিনি । খেলতে পারছেন না বাকী ম্যাচে । এমনকি , এশিয়া কাপে তার খেলা নিয়েও আছে সংশয় ।

সোহান , লিটন ছাড়াও মোস্তাফিজুর রহমান , মুশফিকুর রহিমরা কমবেশি ইনজুরিতে । তবে তারা সেরে উঠবেন এশিয়া কাপের আগে , এমন আশা করা হচ্ছে । এছাড়া গত টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকে দলের বাইরে থাকা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন এশিয়া কাপের আগে সুস্থ হবেন , এমন নিশ্চয়তা পাওয়া যাচ্ছে না । যদিও সর্বশেষ ঘরোয়া লীগে খেলেছেন এই অল রাউন্ডার । তাকে রাখা হয়েছিল গত জুন মাসে তাকে রাখা হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলে। তবে সফরে যাওয়া হয়নি তার। প্রস্তুতি পর্বেই ধরা পড়ে, তিনি তখনও প্রস্তুত নন! বোলিং ফিটনেস সন্তোষজনক পর্যায়ে না থাকার কারণে স্কোয়াডের বাইরে রাখা হয় তাকে। আবার শুরু হয় তার পুনবার্সন ও ফেরার লড়াই।

কিছুদিন আগে ভারতের দিল্লী থেকে চিকিৎসা করিয়ে আসা সাইফউদ্দিন এখন নেটে বোলিং শুরু করেছেন । তবে এশিয়া কাপের আগে পুরো ছন্দ ফিরে পাবেন কিনা বলা মুশকিল । ইয়াসির আলী রাব্বিও ইনজুরি থেকে পুরো সেরে ওঠেন নি ।

এছাড়া, বাংলাদেশের অধিনায়ক নিয়েও আছে সমস্যা । এই মুহূর্তে টি-টুয়েন্টি স্কোয়াডে কোন অধিনায়ক নেই । ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের পর ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের অধিনায়কত্ব হারিয়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ । জিম্বাবুয়ে সফরে অধিনায়ক হওয়া সোহান দলের বাইরে । সিরিজের শেষ ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা মোসাদ্দেক হোসেন ছিলেন ভারপ্রাপ্ত ।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব দেয়া হবে সাকিব আল হাসানকে , এটাই ছিল ছিল বিসিবি’র পরিকল্পনা । কিন্তু বেটিং প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি করে সাকিব বাঁধিয়েছেন নতুন ঝামেলা ! এটি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত সাকিবের দলে আসাই অনিশ্চিত ।

অন্যদিকে , একসাথে একঝাঁক ক্রিকেটারের ইনজুরিতে স্কোয়াড ঘোষণা নিয়েও সমস্যায় বিসিবি । সাম্প্রতিক সময়ে নিয়মিতদের পাওয়া না গেলে হাত বাড়াতে হবে সাব্বির রহমান আর সৌম্য সরকারদের দিকে । সৌম্য সরকার জাতীয় দলের জার্সিতে সর্বশেষ কুড়ি ওভারের ম্যাচ খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। সাব্বির রহমান তো আরও আগে, ২০১৯ সালে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শেষবার খেলেন।

এই বিসিবি’র ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির নতুন চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেছেন , ‘ আমাদের ইনজুরি তালিকা অনেক বড় । যে কারণে এশিয়া কাপের স্কোয়াড ঘোষণায় দেরী হচ্ছে । যেহেতু এখন চোট সমস্যা আছে, সাপোর্ট প্লেয়ারও লাগবে। সেক্ষেত্রে সাব্বির আর সৌম্যদের কথাও হয়ত বিবেচনা করা হবে । তবে দল নির্বাচনের দায়িত্ব নির্বাচকদের । এই চিন্তাটা তারা করছে, আমরা একটা ব্যাকআপ রাখতে চাচ্ছি। সিলেক্টরাও চিন্তা-ভাবনা করছে, রেখেছে তাদের নাম। ‘

অবশ্য দলে ফিরতে চাইলে নিজেদের প্রমাণ করতে হবে  সাব্বির আর সৌম্যকে । এই মুহূর্তে  ‘এ’ দলের  হয়ে  ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আছেন দুজনেই । সেখানে  দারুণ পারফর্ম করলেই দীর্ঘদিন বন্ধ হয়ে থাকা জাতীয় দলের দরজা খুলতে পারবেন এই দুই তারকা ক্রিকেটার। 

আহাস/ক্রী/০০৪