Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

লিভারপুল ইতিহাসের সবচেয়ে দামী ফুটবলার তিনি

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

বয়স মাত্র ২২ বছর । অথচ এই বয়সেই ডারউইন নুনেজ পরিনত হয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব লিভারপুল এফসির ইতিহাসে সবচেয়ে দামী ফুটবলার । ভার্জিল ভ্যান ডাইকের রেকর্ড ভেঙ্গে অল রেডরা দলে ভিড়িয়েছে ডারউইনকে ।

উরুগুয়ের ফুটবলার ডারউইনের ক্যারিয়ার শুরু নিজ দেশের পেনারোলের হয়ে ২০১৭ সালে । সেখান থেকে দুই বছর বাদে যোগ দেন স্পেনের দ্বিতীয় বিভাগের দল আলমেইরায় । আলমেইরায় অবশ্য এক মৌসুমের বেশী থাকেন নি । ২০১৯-২০ মৌসুমে তিনি খেলেন পর্তুগালের সেরা ক্লাব বেনফিকায় । আলমেরিয়া থেকে বেনফিকায় নাম লেখাবার সময়ও রেকর্ড গড়েছিলেন ডারউইন । ২৪ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বেনফিকায় নাম লিখিয়ে তিনি হয়ে যান পর্তুগীজ ক্লাব ইতিহাসের সবচেয়ে দামী ফুটবলার ।

বেনফিকায় নিজের দাম উশুল করে দিয়েছেন ডারউইন । দুই মৌসুমে ক্লাবের হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৮৫ ম্যাচে করেছেন ৪৮ গোল । আর ২০২১-২২ মৌসুমে তো ছিলেন অপ্রতিরোধ্য । করেছেন ৪১ ম্যাচে ৩৪ গোল । ২৮ ম্যাচে ২৬ গোল করে হয়েছেন পর্তুগীজ লা লিগার সেরা গোলদাতা । নির্বাচিত হয়েছেন পর্তুগীজ লীগের ‘ফুটবলার অফ দা ইয়ার’ । দলকে করেছেন লীগ রানার্স-আপ । সব মিলিয়ে ২০২১-২২ মৌসুমটি ছিল ডারউইনের জন্য সোনায় মোড়ানো ।

আর সেই সাফল্যের কারণেই ডারউইন নজর কেড়েছেন ইংলিশ জায়ান্ট লিভারপুলের । যাকে পেতে ৬৪ মিলিয়ন ইউরো খরচ করতে দ্বিতীয়বার ভাবে নি অল রেডরা । সাথে আছে ২১ মিলিয়ন ইউরোর নানামুখী বোনাস । সব মিলিয়ে ডারউইনের জন্য লিভারপুলের খরচ হচ্ছে ৮৫ মিলিয়ন ইউরো । বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমান প্রায় ৭৩০ কোটি ।

ডারউইন এখন লিভারপুলের ইতিহাসের সবচেয়ে দামী ফুটবলার । ২০১৮ সালে হল্যান্ডের ভার্জিল ভ্যান ডাইকের জন্য ৭৬.২ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছিল লিভারপুল । অথচ এই ডারউইনের ফুটবল ক্যারিয়ার শেষ হতে চলেছিল উরুগুয়ের অনূর্ধ্ব-২০ দলের হয়ে খেলার সময় হাঁটুর লিগামেন্ট ছিঁড়ে ।

ইতোমধ্যে উরুগুয়ে মুল জাতীয় দলের হয়ে ১১টি ম্যাচ খেলেছেন ডারউইন । করেছেন দুই গোল । কাতার বিশ্বকাপেও সব কিছু ঠিক থাকলে যাচ্ছেন , তাতেও সন্দেহ নেই । দলে লুইস সুয়ারেজ আর এডিসন কাভানিদের মত ফরোয়ার্ড থাকা স্বত্বেও কোচ দিয়াগো আলোনসোর ক্রমশ আস্থাভাজন হয়ে উঠছেন ।

অনেক ল্যাটিন ফুটবলারের মত ডারউইন নুনেজের ছেলেবেলাও কেটেছে চরম দারিদ্রে । তার বাবা ছিলেন নির্মাণ শ্রমিক আর মা রাস্তা থেকে বোতল কুঁড়াতেন । পরিবারকে একটু সাচ্ছল্য এনে দিতে ফুটবলার হবার স্বপ্ন দেখেছেন এই উরুগুয়ান । তার সেই স্বপ্ন যে সফল হয়েছে সেটা বলাই যায় । এখন ‘মাল্টি মিলিয়নার ম্যান’ ।

আহাস/ক্রী/০০৫