Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বিরাটের না থাকা কাজে লাগালেন গাপটিল

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

টানা দুই জয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে ভারত । তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয়টিতে ভারত জিতেছে সাত উইকেটের ব্যাবধানে ।সর্বশেষ বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠা নিউজিল্যান্ডের এটি হ্যাট্রিক টি-টুয়েন্টি পরাজয় ।

রাঁচিতে শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড নির্ধারিত ২০ ওভারে ছয় উইকেটের বিনিময়ে তোলে ১৫৩ রান । জবাবে ১৭.২ ওভারে তিন উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান করে জয় পেয়ে যায় ভারত ।

ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ডের ওপেনার মার্টিন গাপটিল করেন ৩১ রান । এই ইনিংস দিয়ে কিউই তারকা হয়ে গেছেন টি-টুয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক । ১১১ ম্যাচ খেলে তার সংগ্রহ ৩২৪৮ রান । ৯৫ ম্যাচে ৩২২৭ রান নিয়ে বিরাট কোহলি নেমে গেছেন দ্বিতীয় স্থানে । এই সিরিজে বিরাট খেলছেন না । তাই বিরাটকে আরও পেছনে ফেলার সুযোগ থাকছে গাপটিলের সামনে । টি-টুয়েন্টি ক্যারিয়ারে দুইটি সেঞ্চুরি আর  উনিশটি হাফসেঞ্চুরি করেছেন গাপটিল । মেরেছেন সব মিলিয়ে ২৮৩টি চার আর ১৬১টি ছক্কা । 

নিউজিল্যান্ড ইনিংসে গ্লেন ফিলিপস সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন । আরেক ওপেনার ড্যারিল মিচেলের ব্যাট থেকেও আসে ৩১ রান ।

চার ওভারে ২৫ রান দিয়ে দুইটি উইকেট নেওয়া হার্শাল প্যাটেল পেয়েছেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার । এটি ছিল আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে হার্শালের অভিষেক ম্যাচ । মোহাম্মদ সিরাজের বদলে স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া হার্শাল প্রথম সুযোগেই প্রমাণ করলেন নিজেকে ।

টার্গেট তাড়ায় দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল আর রোহিত শর্মা জয়ের ভিত গড়ে দেন ১১৭ রানের জুটি গড়ে । দুইজনেই করেন হাফসেঞ্চুরি । লোকেশের ব্যাট থেকে আসে ৬৫ রান । তার ৪৯ বলের ইনিংসে ছিল ছয়টি চার আর দুইটি ছক্কা ।

অন্যদিকে এই সিরিজেই ভারতের স্থায়ী টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক হওয়া রোহিত খেলেছেন ৫৫ রানের ঝকঝকে ইনিংস । তিনি ৩৬ বল খেলে মেরেছেন একটি চার । কিন্তু ছক্কা ছিল পাঁচটি । টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে ১১৮ ম্যাচে ৩১৪১ রান এখন ভারতীয় অধিনায়কের । সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় রোহিতের অবস্থান এখন তিনে ।

এছাড়া প্রথম ভারতীয় ওপেনিং জুটি হিসেবে টানা পাঁচ টি-টুয়েন্টি ম্যাচে অর্ধশতরানের পার্টনারশিপ গড়েন রোহিত আর  লোকেশ রাহুল । নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ৫০ রানের জুটি গড়েছিলেন দুই ওপেনার  এছাড়া বিশ্বকাপে আফগানিস্তান (১৪০) , স্কটল্যান্ড (৭০) আর নামিবিয়ার (৮৬) বিপক্ষে এই জুটি করেছিল হাফসেঞ্চুরি । 

এখানেই শেষ নয় , টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে পাঁচটি শতরানের পার্টনারশিপ গড়ার রেকর্ডে বে পাঁচবার ১০০ বা তার বেশি রানের পার্টনারশিপ গড়ে রেকর্ড করেছিলেন পাকিস্তানের বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানকে ছুঁয়েছেন রোহিত আর লোকেশ । টি-টুয়েন্টি  ক্রিকেটে এই দুই জুটির আছে  পাঁচটি করে শতরানের ওপেনিং পার্টনারশিপ , যা আর কারো নেই । দ্বিতীয় সর্বোচ্চ চারটি ১০০ রানের পার্টনারশিপ গড়েছেন ভারতেরই রোহিত শর্মা ও শিখর ধাওয়ান। 

এই সিরিজ দিয়ে ভারতে শুরু হয়েছে রোহিত আর রাহুল দ্রাবিড়ের যুগ ।

আহাস/ক্রী/০০১