Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

টেস্ট সিরিজ শুরুর আগেই হতাশা

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

বাংলাদেশের ক্রিকেটের জন্য সময়টা কাটছে খুব বাজেভাবে । সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত আইসিসি টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে টানা পাঁচ হার নিয়ে দেশে ফেরা । পরবর্তীতে যোগ হয়েছে পাকিস্তানের কাছে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজে ‘ধবল-ধোলাই’ । যদিও ঘরের মাঠে সিরিজ বলে পাকিস্তানের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়াবার প্রত্যাশা ছিল , যা পূরণ করতে পারে নি টাইগার ক্রিকেটাররা । যে কারণে পাকিস্তানের সাথেই দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ নিয়ে এখন আর খুব বেশী আশাবাদী হওয়ার মত লোক খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না !

আগামী শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) থেকে মাঠে গড়াচ্ছে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট । চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি । তবে ইনজুরির কারণে টেস্ট সিরিজে নেই অনেকদিন ধরে দলের বাইরে থাকা তামিম ইকবাল খান । খেলা হচ্ছে না বিশ্বকাপে ইনজুরিতে পড়া সাকিব আল হাসানের । ইনজুরির কারণে বাদ পড়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান আর তাসকিন আহমেদ । আরেক বোলার শরিফুলকেও রাখা যায় নি ইনজুরি সমস্যায় ।

মুমিনুল হকের নেতৃত্বে অপেক্ষাকৃত তরুণ ক্রিকেটারদের নিয়ে গঠিত হয়েছে টেস্ট স্কোয়াড । যেখানে সিনিয়র বলতে মুশফিকুর রহিম , যিনি আবার অফ ফর্মের কারণে বিশ্বকাপের পরেই টি-টুয়েন্টি সিরিজে বাদ পড়েছিলেন ! একই কারণে বাদ পড়া লিটন দাসকেও ফিরিয়ে আনা হয়েছে ।

মুশফিকের টি-টুয়েন্টি সিরিজে বাদ পড়া নিয়ে আছে  বিতর্ক । বিসিবি তরফে তাকে বিশ্রামের কথা বলা হলেও মুশি নিজে তা মানতে নারাজ ! বিশ্বকাপে তার যা পারফরম্যান্স, তাতে জায়গা না পাওয়াটা বিস্ময়কর নয়। তবে বিতর্ক ছড়ায় নির্বাচকদের ব্যাখ্যা ও মুশফিকের প্রতিবাদ ঘিরে। প্রধান নির্বাচক দল ঘোষণার সময় জানান, টি-টোয়েন্টি সিরিজে বিশ্রাম দিয়ে মুশফিককে টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতির সুযোগ দেওয়া হয়েছে। যদিও মুশফিক প্রতিবাদ করে জানিয়েছিলেন । তাকে বাদই দেয়া হয়েছে । এই জন্য আবার মুশফিককে ‘কারণ  দর্শাও’ নোটিশ দিয়েছিল বিসিবি ! 

যাই হোক , টি-টুয়েন্টি সিরিজে বাদ পড়া মুশফিক আবার ফিরেছেন টেস্টে । নিজেকে প্রস্তুত করছেন চট্টগ্রামে । চেষ্টা করছেন নিজের হারানো ফর্ম ফিরে পাওয়ার । চলতি বছর পাঁচটি টেস্ট খেলেছেন মুশফিক । ফিফটি মাত্র দুইটি । একটিতে অপরাজিত থাকেন ৬৮ রানে, আরেকটিতে ফেরেন ৫৪ রানে। আরও দুটি ইনিংসে আউট হন ৪০ রানে, আরেকটি ৩৮ রানে। এভাবে বারবার থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে না পারা তার জন্য অস্বাভাবিকই। সবশেষ টেস্টে গত জুলাইয়ে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আউট হন ১১ রানে।

মিডল অর্ডারে বাংলাদেশের অন্যতম ভরসা মুশফিক ।  তার উপর দলে নেই সাকিব , তামিম আর মাহমুদুল্লাহ । এমন পরিস্থিতিতে মুশফিক নিজের সেরাটা না দিতে পারলে বাংলাদেশের জন্য সেটা হবে বিপর্যয়ের । 

পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ  দলে যোগ হয়েছে দুই নতুন মুখ মাহমুদুল হাসান জয় ও পেসার রেজাউর রহমান জয়। দুজনেই সর্বশেষ জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) দারুণ পারফর্ম করেছেন। যুব বিশ্বকাপ জেতা ২১ বছর বয়সী জয় জাতীয় লিগে তিন ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি করেছেন। এখন পর্যন্ত প্রথম শ্রেণিতে ৬ ম্যাচ খেলে ৪৬ গড়ে ৪৬০ রান করেছেন জয়। ২১ বছর বয়সী পেসার রেজাউর রহমান রেজা প্রথম শ্রেণিতে ১০ ম্যাচে ৩৯ উইকেট নিয়েছেন।

জাতীয় ক্রিকেট লিগ, এনসিএলের পারফরম্যান্স বিবেচনায় রাজাকে রাখা হয়েছে চট্টগ্রাম টেস্টের দলে। এনসিএলে রাজা বল হাতে দাপট দেখিয়েছেন দিনের শুরু থেকে শেষ ভাগ পর্যন্ত। এই বিষয়টি বেশি নজর কেড়েছে নির্বাচকদের। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুও জানিয়েছিলেন রাজার এই চনমনে ভাবের কথা। এই নিয়ে রাজা বলেছেন , ‘আমার নিজের যেটা মনে হয়, আমি এক জায়গায় টানা বল করতে পারি। বলে কিছু মুভমেন্ট করাতে পারি, এক ছন্দে টানা বল করতে পারি। দিনের শুরুতে যে গতিতে বোলিং করি, দিনের শেষে আলহামদুলিল্লাহ তারচেয়ে একটু বেশি পেসেই বল করতে পারি।’

এদিকে সাইফ হাসান , নাজমুল ইসলাম শান্ত – যারা পাকিস্তনের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজে পাওয়া সুযোগ কাজে লাগাতে পারেন নি । ইয়াসির আলী রাব্বি এখনও অপরীক্ষিত । গত দেড় বছর যাবত টেস্ট দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকেও এখনো একটি ম্যাচে খেলার সুযোগ পাননি তিনি । চট্টগ্রামে রাব্বির অভিষেক হবে কিনা সেটা সময়েই বলে দেবে । তবে বাংলাদেশ দলে তরুণ খেলোয়াড়দের সাম্প্রতিক যা পারফর্মেন্স , তাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে আশাবাদী হওয়ার কিছুই নেই আসলে ।

যদিও রাব্বি নিজে আশাবাদী সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণের , ‘জাতীয় লিগে বেশ কয়েকটি ইনিংস ভালো খেলেছি। আমার আত্মবিশ্বাস এখন ভালো আছে। তার আগে এইচপি ও এ টিমের প্রস্তুতি ম্যাচেও আমি ভালো একটা স্কোর করেছি, খেলেছি। তাই আমি প্রস্তুত আছি, সামনের ম্যাচগুলোতে ভালো খেলার জন্য।’ 

মুমিনুল, নাইম হাসান, ইয়াসির আলী রাব্বী চট্টগ্রাম বিভাগের ছেলে। তাদের সঙ্গে এবার টেস্ট দলে আছেন চট্টগ্রামের উঠতি ক্রিকেটার জয়।   তারা চট্টগ্রামের মাঠে আর আবহাওয়ায় খেলতে অভ্যস্ত ।  এটা বাংলাদেশের জন্য বাড়তি সুবিধা হতে পারে ! 

টেস্ট অভিষেকের সুযোগ পেলে নিজের স্বাভাবিক ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দিবেন বলে জানিয়েছেন মাহমুদুল হাসান জয়,’আসলে তেমন কোনো আলাদা পরিকল্পনা নেই। সুযোগ পেলে আমি আমার স্বাভাবিক ব্যাটিংয়ের চেষ্টা করব।’ 

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ । বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক অবশ্য গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারে টেস্টের সময়েই বলেছিলেন অবসরের কথা ,  কিন্তু সেটার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ছিল বাকী । অবশেষে সেই ঘোষণা দিয়ে টেস্ট ক্রিকেট থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন তিনি  । 

বাংলাদেশ স্কোয়াডঃ মুমিনুল হক (অধিনায়ক), সাদমান ইসলাম, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, লিটন কুমার দাস, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, ইবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি, ইয়াছির আলী রাব্বি, মাহমুদুল ইসলাম জয়, রেজাউর রহমান রেজা

আহাস/ক্রী/০০৩