Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশকে নিয়ে কাতারের ছেলেখেলা

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

কাতারের বিপক্ষে ফুটবল লড়াইয়ে বাংলাদেশ জিতবে , এমনটা কেউ নিশ্চিত ভাবে নি । আবার অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার এক পয়েন্টের প্রত্যাশাও ছিল বাড়াবাড়ি , সেটা খেলার আগেই বুঝে গিয়েছিলেন সবাই । তবে কোচ জেমি ডে বলেছিলেন , লড়াই করে হারার কথা । এই বিষয়টায় হয়ত আশাবাদী ছিল কেউ কেউ । কিন্তু সেই আশার গুঁড়ে বালি দিয়ে বাংলাদেশ কাতার থেকে ফিরছে বড় হারকে সঙ্গী করে ।

শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) দোহার আব্দুল্লাহ বিন খলিফা স্টেডিয়ামে স্বাগতিক কাতারের বিপক্ষে ০-৫ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ । ২০২২ সালের বিশ্বকাপ আর ২০২৩ সালের এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্বে দুই দলের ফিরতি লেগের ম্যাচে বাংলাদেশকে নিয়ে ছেলেখেলাই করেছে কাতার । গত অক্টোবরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রথম দেখায় ০-২ গোলে কাতারের কাছে হেরেছিল বাংলাদেশ ।

ফিফা র‍্যাংকিংয়েই দুই দেশের পার্থক্য স্পষ্ট । যেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৮৪ আর কাতারের ৪৯ । তার উপর কাতার বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন । আগামী বিশ্বকাপের স্বাগতিক । সব মিলিয়ে শুরু থেকেই শক্তিশালী কাতারের বিপক্ষে ‘পুঁচকে’ বাংলাদেশ খেলেছে রক্ষণাত্মক ফুটবল । যদিও বলা হয়েছিল কাউন্টার-এটাক নির্ভর ফুটবলের কথা , কিন্তু বাংলাদেশকে কোন সুযোগ দেয় নি কাতার । গোটা ম্যাচে একটিবারের জন্য কাতারের সীমানায় বল নিয়ে যেতে দেখা যায় নি জেমি ডের শিষ্যদের ।

বাংলাদেশের হয়ে মাত্রই দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলতে নামা আনিসুর রহমান জিকো একমাত্র লড়াই করেছেন । বলতে গেলে আরও অনেক বড় হারের লজ্জা থেকে বাংলাদেশকে বাঁচিয়েছেন তিনি । পুরো ম্যাচে ৭৩ শতাংশ বলের দখল ছিল কাতারের কাছে। এতেই বোঝা যায় কতোটা প্রভাব বিস্তার করে খেলেছে এশিয়ার চ্যাম্পিয়নরা। গোল পোস্টের দিকে তারা ২৯টি শট নিয়েছিল। তার মধ্যে ৫টিতে গোল হয়েছে। ১০টি ফিরিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের গোলরক্ষক ।

একচেটিয়ে প্রাধান্য নিয়ে কাতারের প্রথম গোল করেন আবদুল্লাজিজ হাতেম ৯ মিনিটে। ৩৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আকরাম আফিফ। ৭২ মিনিটে আলময়েজ আলী পেনাল্টি থেকে এবং ৭৮ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন। ইনজুরি সময়ে আকরাম আফিফ নিজের দ্বিতীয় গোল করে কাতারের ৫-০ ব্যবধানের জয় নিশ্চিত করেন।

এই ম্যাচের পর প্রশ্ন উঠতে পারে বাফুফের সিদ্ধান্ত নিয়ে। করোনার সময় দীর্ঘদিন খেলার বাইরে থাকার পর নেপালের বিপক্ষে দুইটি প্রীতি ম্যাচ দিয়ে খেলায় ফিরেছিল বাংলাদেশ। তবে খর্বশক্তির নেপালের বিরুদ্ধে সেই ম্যাচ দুইটি যে প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট ছিল না, এই ম্যাচ দেখেই সেটা বোঝা গেছে। বিশেষ করে কাতারের মতো দলের বিপক্ষে এমন প্রস্তুতিতে মাঠে নামা কতটা আত্মঘাতী হতে পারে, দেখা গেছে ভালোমতোই।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে বাংলাদেশের এখনো তিনটি ম্যাচ বাকি রয়েছে। তিনটি ম্যাচই ঘরের মাঠে। প্রতিপক্ষ ভারত, আফগানিস্তান ও ওমান। এই তিন ম্যাচ থেকে ভালো কিছুর প্রত্যাশায় আছে লাল সবুজের দল । সেটা কতটুকু পূরণ হবে জানা যাবে যথাসময়ে ।

এই মুহূর্তে ৬ ম্যাচ থেকে ১৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ‘ই’ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষেই আছে কাতার। অন্যদিকে ৫ ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট সংগ্রহ করে বাংলাদেশ রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে।

আহাস/ক্রী/০০১