Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

শেষ ম্যাচের একাদশে রুবেল আর হাসান মাহমুদ

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

পাকিস্তান সফরে বাংলাদেশের সময়টা একেবারেই ভাল যাচ্ছে না । অনেক নাটকের পর সফরে রাজী হওয়া বাংলাদেশ হেরে গেছে প্রথম দুইটি টি-২০ ম্যাচেই । ফলে হাত ফস্কে গেছে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ । এখন টাইগারদের সামনে পাকিস্তানের মাটিতে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে ধবল-ধোলাই হবার শংকা ।

হোয়াইট-ওয়াশের শংকা মাথায় নিয়েই সোমবার (২৭ জানুয়ারি) পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় আর শেষ টি-২০ ম্যাচ খেলতে নামছে বাংলাদেশ । লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল তিনটায় শুরু হবে ম্যাচটি ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে শনিবার দ্বিতীয় ম্যাচে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ । এর আগে প্রথম ম্যাচে হেরেছিল পাঁচ উইকেটে । দুই ম্যাচেই বাংলাদেশের ব্যাটিং সবার সমালোচনা কুড়িয়েছে । প্রথম ম্যাচে ১৪১ আর দ্বিতীয় ম্যাচে ১৩৬ রান করে বাংলাদেশ । দুই ম্যাচেই পুরো ২০ ওভার খেলা বাংলাদেশের খেলায় ছিল না টি-২০ সুলভ মানসিকতা । বরং ডট বল দেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানেরা ছিল দারুণ উদার । প্রথ ম্যাচে ৪৫ আর দ্বিতীয় ম্যাচে ৪৭ ডট বল খেলে বাংলাদেশ । টি-২০ ক্রিকেটে যা মেনে নেয়া কষ্টকর । এর আগে ভারত সফরের শেষ দুই ম্যাচেও দেখা গেছে একই চিত্র । অর্থাৎ বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা এখন যেন ভুলে গেছে টি-২০ খেলাটা । অথচ সদ্যই নিজ দেশের বিপিএল খেলে পাকিস্তান সফরে গেছে টাইগাররা ।

পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় আর শেষ ম্যাচে মূল লক্ষ্য , ডট বলের ফাঁদ থেকে বেরিয়ে আসা । ব্যাটসম্যানদের পরিস্থিতি বুঝে আরও আক্রমণাত্মক হতে বলা হচ্ছে । এমনিতেই দলে নেই বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান আর মুশফিকুর রহিমের মত অন্যতম দুই ভরসা । এমন পরিস্থিতিতে অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের মত সিনিয়রদের সাথে অন্যদের যে দায়িত্ব নিয়ে খেলার কথা ছিল ,সেটা তারা খেলতে পারে নি ।

এদিকে শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের একাদশে অন্তত দুইটি পরিবর্তন দেখা যেতে পারে । একাদশে আসতে পারেন রুবেল হোসেন আর অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা হাসান মাহমুদ । এছাড়া সুযোগ মিলতে পারে নাজমুল হাসান শান্তর । এই তিনজন এখনও পাকিস্তানে খেলার সুযোগ পান নি ।

বাংলাদেশের কোচ ডমিঙ্গো জানান সিরিজে আর কিছু পাওয়ার না থাকায় বাকিদেরও বাজিয়ে দেখতে চান তিনি, ‘স্কোয়াডের সবাইকে সুযোগ দিতে হবে। আমরা এমনিতেই ২-০ তে পিছিয়ে পড়েছি। এখনো তিনজন খেলেনি, তারা অবশ্যই দলে আসবে। আরও কিছু বিকল্প ভাবনা আমরা ভেবে দেখব।’

সবাইকে সুযোগ দিলে শেষ ম্যাচে অভিষেক হবে তরুণ পেসার হাসানের। এবার বিপিএলে গতির ঝলক দেখিয়ে জাতিয় দলে আসেন তিনি।

বিপিএলে ২০ উইকেট নিয়ে টি-২০ দলে ফেরা রুবেলের জন্যও হবে এটি বড় সুযোগ। এই দুই পেসারই খেললে মোস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, আল-আমিন হোসেনের যেকোনো দুজন বাদ পড়তে পারেন।

দেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে বিপিএলে এবার একমাত্র সেঞ্চুরি করে ফেরেন শান্ত। তিনি একাদশে ফিরলে বসতে হতে পারে টপ অর্ডার একজন ব্যাটসম্যানকে। এদিকে শফিউল বাদ পড়বেন রুবেল দলে এলে । আর মোস্তাফিজুর রহমানের জায়গায় আসতে পারেন হাসান মাহমুদ । আর শান্ত যদি ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গী হন , সেই ক্ষেত্রে বেঞ্চে থাকতে হবে নাইম শেখকে ।

 তবে ইনজুরিতে থাকা সৌম্যের তৃতীয় ম্যাচে না থাকায় তার জায়গাতেও দেখা যেতে পারে শান্তকে। এক্ষেত্রে টিকে যাবেন নাইম শেখ। সম্ভাবনা রয়েছে মিথুনেরও একাদশে ফেরার।

বাংলাদেশ দলে শেষ ম্যাচে পরিবর্তন আসছে তাতে কোন সন্দেহ নেই । কিন্তু সেটা কয়জন বোঝা যাবে অবশ্য ম্যাচের আগে ।

তৃতীয় টি-২০ ম্যাচে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশঃ
তা
মিম ইকবাল, নাইম শেখ, নাজমুল হাসান শান্ত, লিটন দাস, আফিফ হোসাইন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মাহেদী হাসান/ মোহাম্মদ মিথুন, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, শফিউল ইসলাম, আল আমিন হোসাইন/ রুবেল হোসেন, হাসান মাহমুদ।

আহাস/ক্রী/০০৪