Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশেই কুফা কাটলো পাকিস্তানের !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

২০১৮ সালের শেষের দিকে শ্রীলঙ্কা আর অস্ট্রেলিয়ার কাছে টানা পাঁচটি টি-২০ হেরেছে পাকিস্তান । তবে ২০১৯ সালের শুরুতেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে টি-২০ র‍্যাংকিংয়ের এক নাম্বারে থাকা দলটি । বাংলাদেশকে তিন ম্যাচ সিরিজের শুরুতেই পাঁচ উইকেটে হারিয়ে টানা পরাজয়ের ‘বৃত্ত’ থেকে বেরিয়ে এসেছে পাকিস্তানীরা ।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে শুরুতে ব্যাট করে বাংলাদেশ নির্ধারিত ২০ ওভারে তোলে পাঁচ উইকেটে ১৪১ রান । জবাবে তিন বল বাকী থাকতে পাঁচ উইকেট হাতে থাকা পাকিস্তান ১৪৩ রান করে জয়ের দেখা পায় ।

টার্গেট তাড়ায় দুই বলে কোন রান না করেই ফেরেন পাকিস্তানী অধিনায়ক বাবর আজম ।

দ্বিতীয় উইকেটে ৩৫ রান যোগ করেছেন আরেক ওপেনার আহসান আলী আর মোহাম্মদ হাফিজ । অভিজ্ঞ হাফিজ অবশ্য ১৬ বলে ১৭ রানের বেশী এগুতে পারেন নি । মোস্তাফিজের বলে বিপ্লবের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে তিনটি চার মেরেছিলেন হাফিজ ।

তৃতীয় উইকেটে আরও ৪৬ রান আহসান আলী যোগ করেন শোয়েব মালিকের সাথে । আহসান আলী আউট হবার আগে ৩২ বলে চারটি চারে করেছেন ৩৬ রান ।

এরপর ইফতেখার আহমেদ ১৬ আর ইমাদ ওয়াসিম ৬ রানে আউট হলেও সমস্যা হয় নি পাকিস্তানের । একপ্রান্ত ধরে রাখা মালিক অপরাজিত হাফসেঞ্চুরি করে দলকে জিতিয়ে ফেরেন ।

মালিক অপরাজিত ৫৮ রান করেছেন ৪৫ বলে । তার ইনিংসে ছিল পাঁচটি চার ।

বাংলাদেশের হয়ে শফিউল ইসলাম দুইটি উইকেট নেন । একটি করে উইকেট পেয়েছেন মোস্তাফিজ , আল আমিন আর আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ।

এর আগে বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখে মনেই হয় নি তারা টি-২০ খেলছে । এমনও না আবার যে অনেকদিন পর ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে খেলতে নেমেছে টাইগাররা । মাত্রই বিপিএল খেলা টাইগার ব্যাটসম্যানরা এদিন যেন ভুলেই গিয়েছিলেন টি-২০ ক্রিকেটের মূল কথা । তাইতো চরম স্লথ গতির ব্যাটিং বরং সর্বনাশ করেছে বাংলাদেশের ইনিংসের ।

যদিও প্রথম উইকেটে রেকর্ড করেছেন তামিম ইকবাল খান আর নাইম শেখ ! থম উইকেট জুটিতে তামিম-নাইম শেখের ৭১ রানের পার্টনারশিপ টি-২০ ফরমেটে পাকিস্তানের বিপক্ষে এই জুটিতে সেরা। তবে এই রানের বিপরীতে খরচা হয়েছে ৬৬ বল, সেখানেই প্রশ্ন। স্লগে মার মার কাট কাট ব্যাটিং করতে চান বলে কথা দিয়েও স্লগে করেছেন হতাশ মাহামুদুল্লাহ। শেষ ৩০ বলে স্কোরশিটে উঠেছে ৪১ !

ওপেনিং পার্টনারশিপে ৭১, অবশিস্ট ৪ পার্টনারশিপে ৭০ ! ৬ মাস পর ফিরেছেন তামিম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। তবে ফেরাটা হয়নি ফেরার মতো। বিপিএলে তামিমের স্ট্রাইক রেট ছিল না প্রশংসিত। লাহোরে ব্যাটিং ফ্রেন্ডলি পিচ পেয়েও টি-২০ কে ওয়ানডে ভেবে করেছেন ব্যাটিং (৩৪ বলে ৪ চার,১ ছক্কায় ৩৯, স্ট্রাইক রেট ১১৪.৬৬)।মিড উইকেট থেকে থ্রো তে রান আউটে কাঁটা পড়েছেন তিনি।

নভেম্বরে নাগপুরে ভারতের বিপক্ষে ৪৮ বলে ৮১ রানের ইনিংসে টি-২০ ক্রিকেটে আদর্শ ব্যাটসম্যান-এর বার্তা দেয়া নাইম শেখ তামিমের ধীরগতির ব্যাটিংয়ে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন ! সাদাবের বলে লং অন এ ক্যাচ দিয়েছেন । করেছেন ৪১ বলে ৩ চার,২ ছক্কায় ৪৩ রান , স্ট্রাইক রেট ১০৪.৮৭ ।

মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ শেষের দিকে ঝড় তুলতে পারেন নি । করেছেন ১৪ বলে দুইটি চারে ১৯ রান ।

১২০ বলে ৪৫ ডট বল দিয়েছে পাকিস্তানী বোলাররা । এমন হলে টি-২০ ক্রিকেটে বড় ইনিংস গড়া সম্ভব না । বাংলাদেশ পারেও নি !

১২০ বলের মধ্যে ৪৫টি ডট ! তা না হয় মেনে নেয়া গেল, তবে ইনিংসে বাউন্ডারির সমস্টি ১২টি, সর্বসাকূল্যে ছক্কা ৩টি ! টি-২০ ক্রিকেটের আমেজটাই যে ব্যাটিংয়ে দিতে পারেনি বাংলাদেশ দল।

পাকিস্তানের হয়ে শাহিন আফ্রিদি , হ্যারিস রউফ আর শাদাব খান নিয়েছেন একটি করে উইকেট ।

ম্যাচের সেরা শোয়েব মালিক ।

আহাস/ক্রী/০৯