Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

রোনালদো ফুটবলের ‘এয়ার জর্ডান’

আহসান হাবীব সুমন/ক্রীড়ালোকঃ

গত বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) আবারও বিশ্ববাসীকে হতবাক করেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো । জুভেন্টাসের জার্সিতে প্রতিপক্ষ সাম্পদরিয়ার বিপক্ষে এমন গোল করেছেন , যা নিয়ে এখন রীতিমত চলছে গবেষণা । রোনালদোর চরম সমালোচকরাও এখন তাকে ভাসাচ্ছেন প্রশংসায় । ভূষিত  নানাবিধ প্রশংসাসূচক উপাধিতে ।

সাম্পদরিয়ার বিপক্ষে প্রথমার্ধের একেবারে শেষ বেলায় পুরো ফুটবল দুনিয়াকে ‘হতবাক’ করেন রোনালদো অবিশ্বাস্য এক গোল করে । আলেক্সান্দ্রোর ক্রস থেকে প্রায় ‘অসম্ভব’ কোন থেকে লাফিয়ে উঠে করা তার হেড জড়ায় প্রতিপক্ষের জালে ।

বিশ্লেষণ বলছে , সেই সময়ে রোনালদো লাফিয়েছিলেন ৮.৩৯ ফিট । অর্থাৎ রোনালদো লাফিয়েছিলেন ক্রসবারের (৮ ফিট) চেয়েও বেশুই উঁচুতে । রোনালদোর কোমর ছিল প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারের মাথার উপরে । অথচ বলের নাগাল পেতে সেই ডিফেন্ডারও লাফ দিয়েছিলেন বেশ খানিকটা । কিন্তু আগ্রাসী চিতার মত ক্ষিপ্র রোনালদোর নাগাল তিনি পান নি ।

এমন অবিশ্বাস্য লম্ফঝম্ফ শুধু বাস্কেটবলেই দেখা যায় । আর সেটাও শুধু বিশ্বসেরা আমেরিকান ‘এনবিএ’ লীগের খেলায় । আর সেখানেও কি সবাই পারেন লাফিয়ে আকাশ ছুঁতে ? উত্তর হচ্ছে , না । এমন লাফিয়ে বল ঝুড়িতে ফেলার ক্ষমতা ছিল শুধু বাস্কেটবলের সর্বকালের সেরা মাইকেল ‘এয়ার’ জর্ডানসহ হাতেগোনা কয়েকজনের ।

রোনালদো যেভাবে ‘মধ্যাকর্ষণ’ শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাতাসে ভেসেছিলেন , সেটা আসলেই অবাক করার মত । কারণ তার লাফিয়ে ওঠা থেকে গোল করা পর্যন্ত সময়টা নেহায়েত কম না । এতটা সময় বাতাসে থাকায় নতুন করে রোনালদোর নামের পাশে ব্যবহৃত হচ্ছে ‘সুপারম্যান’ শব্দটি ।

এই গোল দেখে ১৯৮৬ সালে ফিফা বিশ্বকাপের সেরা গোলদাতা ইংল্যান্ডের গ্যারি লিনেকার টুইট করেছেন ‘ এটা আমি কি দেখলাম ! রোনালদো যেভাবে হেড করলেন , এটা স্বাভাবিক কোন মানুষের পক্ষে সম্ভব না ! ‘

নিজ দলের বিপক্ষে রোনালদোর গোল দেখে মুগ্ধ সাম্পদরিয়া কোচ ক্লডিও রেনেইরি বলেছেন , ‘ রোনালদো যা করল , সেটা অবিশ্বাস্য । এমনটা শুধু এনবিএলেই আপনি দেখতে পারবেন , ফুটবলে না । রোনালদো বাতাসে ভাসলে তাকে আটকাবার সাধ্য কারো নেই । রোনালদো বাতাসে ভাসছে , এটা পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর দৃশ্য । ‘

হেডে রোনালদোর মত সক্ষমতা নেই আর কারো । এখন পর্যন্ত ৫৫টি লীগ গোল করেছেন তিনি শুধু হেডেই । যা ইউরোপের সেরা পাঁচ লীগে খেলা যে কোন খেলোয়াড়ের চেয়ে অন্তত ১৪টি বেশী ।

ম্যানচেষ্টার ইউনাইটেডে রোনালদোর সাবেক ফিটনেস কোচ মিগ ক্লেইগ জানিয়েছেন , ‘ আমি মোটেই অবাক হই নি রোনালদোর এমন গোল দেখে । সে আজন্ম এথলেট । সে প্রতি মুহূর্তে নিজের ক্ষমতা বাড়াতে চায় । এই জন্য বাড়তি পরিশ্রম করে । ৩৪ বছর বয়স তো কি , এটা রোনালদোর জন্য কোন বিষয় না ! ‘

তিনি আরও বলেছেন , ‘ রোনালদো বাঘের মত শক্তিশালী আর চিতার মত ক্ষিপ্র । তবে তার আসল শক্তি মস্তিস্কে । সে বিশ্বাস করে , এসব কিছুই করতে পারবে । করেও । সে বয়সের সাথে সাথে আরও শক্তিশালী হচ্ছে । ‘

রোনালদো নিজেই গতবছর বলেছিলেন , ‘ এমনিতে তার বয়স ৩৪ হলেও আসলে সে শারীরিকভাবে ২৩ বছরের যুবক । ‘

এক বছর আগেই রোনালদো অবিশ্বাস্য এক বাই সাইকেল কিকে গোল করেছিলেন বর্তমান দল জুভেন্টাসের বিপক্ষে । সেবার তিনি নিজেকে শুন্যে ভাসিয়েছিলেন সাত ফিট সাত ইঞ্চি । এমন ঘটনা রোনালদোর ক্যারিয়ারে অনেক আছে ।

রোনালদোর গোলে মুগ্ধ ইংল্যান্ডের ৫৪ বছর বয়সী ফুটবল বিশেষজ্ঞ পিয়ের্স মরগান লিখেছেন , ‘ এমন কিছু মেসির পক্ষে করা কোনদিন সম্ভব না !’

অবশ্য এমন কিছুর ক্ষেত্রে লিওনেল মেসির সাথে রোনালদোর কোন তুলনা হয় না । কারণ মেসি সব সময়েই বাঁ বায়ে বিশ্বসেরা । এক পজিশন দিয়ে একই ধাঁচের ফুটবল খেলে বার্সেলোনার অধিনায়ক হয়ে গেছেন সেরাদের একজন । কিন্তু সেই মেসি রোনালদোর মত বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী নন । তিনি রোনালদোর মত আকাশ ছুঁয়ে হেড করতে পারেন না , পারেন না বাই সাইকেল কিকে বল প্রতিপক্ষের মাথার উপর দিয়ে জালে পাঠাতে । সেটা তার ক্যারিয়ার বিশ্লেষণ করলেই পরিস্কার হয়ে যায় ।

যে কারণে রোনালদো সবার সেরা । সেরাদের সেরা । তার সাথে তুলনায় আসার মত ফুটবলার এই বিশ্বভরমান্ডে কেউ নেই ।

আহাস/ক্রী/০০৩