Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশ আর ভারতের প্রথম টি-২০ ম্যাচ নিয়ে শংকা !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

ভারতের মাটিতে প্রথমবারের মত পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে চলেছে বাংলাদেশ । ভারত সফরে দুই দলের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে তিনটি টি-২০ আর দুইটি টেস্ট ম্যাচ । আগামী ৩ নভেম্বর দিল্লীতে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ আর ভারতের মধ্যকার টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচ ।

তবে ভারত আর বাংলাদেশের মধ্যে অনুষ্ঠিতব্য প্রথম টি-২০ ম্যাচ নিয়ে দেখা দিয়েছে শংকা । আর সেটা দিল্লীর অসহনীয় বায়ু দূষণের কারণে । দিল্লীর ফিরোজ শাহ কোটালা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিতব্য এই ম্যাচ নিয়ে শংকায় আছে খোদ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) ।

দিল্লী পৃথিবীর সবচেয়ে বায়ু দূষণের শহর । দুই বছর আগে ভারত-শ্রীলংকার মধ্যকার টেস্টে এখানকার বায়ু দূষণ এতটাই প্রকট হয়ে উঠেছিল যে, সফরকারী খেলোয়াড়রা ‘মাস্ক’ পড়তে বাধ্য হয়েছিলেন।

এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) ইতোমধ্যেই দিল্লির বাতাসকে ‘খুব খারাপ’ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। একিউআইয়ের মানদন্ড অনুযায়ী, দিল্লির বাতাসে দূষণের মাত্রা ৩০১-৪০০, যা শ্বাসকষ্ট ও অন্যান্য শারীরিক অসুস্থতার কারণ হতে পারে। সে কারণেই বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ নভেম্বরের ম্যাচটির ভেন্যু নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

দিল্লীতে বায়ু দূষণ সর্বোচ্চ মাত্রা পায় হিন্দু ধর্মালম্বীদের অন্যতম উৎসব ‘দিপাবলি’ সময় । এই উৎসবে ব্যাপক হারে তেলের প্রদীপ আর বাজি পোড়ান হয় । যার ধোঁয়া বাতাসের সাথে মিশে বাড়িয়ে দেয় দূষণের মাত্রা ।

এই নিয়ে বিসিসিআই জানায় , ‘ দীপাবলি উৎসবের পর দিল্লীতে বায়ু দূষণের মাত্রা কয়েকগুণ বেড়ে যায় । কিন্তু এই ধর্মীয় উৎসবের কোন কিছু আমাদের হাতে নেই । ‘

বিসিসিআই’র এক কর্মকর্তা আরও জানান , ‘ তবে দীপাবলির এক সপ্তাহ পরে এই ম্যাচ। তাই ধরে নেওয়া যেতে পারে এই ম্যাচে খেলোয়াড়দের ওপর বায়ুদূষণ কোনো প্রভাব ফেলবেনা না। ‘

যদিও আগামী মাসে দিল্লিতে বায়ুদূষণের মাত্রা বাড়তে পারে। ফলে কমতে পারে দৃশ্যমানতা। এমন পরিবেশে ম্যাচ আয়োজন নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানাচ্ছে, দিল্লিতে বায়ুদূষণের মাত্রা বেড়েছে। আগামী এক মাসের মধ্যে অবস্থা ভালো হওয়ার সম্ভাবনা কম।

বাংলাদেশ ম্যাচটি দিল্লির পরিবর্তে অন্য কোথাও আয়োজনের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলেন বিসিসিআইর এক কর্মকর্তা বলেন , ‘ বাংলাদেশের সফর সুবিধাজনক করতেই দিল্লিতে প্রথম ম্যাচ রাখা হয়েছে। সাকিবরা এখানে এসে প্রথম ম্যাচ খেলবেন। এর পর কলকাতায় টেস্ট খেলে রওনা হবেন দেশের উদ্দেশে। নাগপুর, রাজকোট ও ইন্দোরে বাকি ম্যাচগুলো খেলবেন টাইগাররা। ‘

বিসিসিআই আরও জানায় , ‘ বাংলাদেশ সফরের সময় পাঞ্জাব ও হরিয়ানার কৃষকেরা যেন জমির আগাছা না পোড়ান, সে ব্যাপারে অনুরোধ জানানো হয়েছে এই রাজ্যের সরকারকে। ‘

বাংলাদেশের সফর শেষ হচ্ছে কোলকাতায় ইডেন গার্ডেন্সে টেস্টের মধ্য দিয়ে ।

আহাস/ক্রী/০০৫