Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশের অধিনায়ক হতে রাজী মাহামুদুল্লাহ

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

কিছুদিন ধরেই বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব নিয়ে উঠছে নানা কথা । এমনিতেই মাশরাফি বিন মুর্তজার ক্যারিয়ার আর খুব বেশী বাকী নেই । ইতোমধ্যেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে বহুদূরে সরে গেছেন তিনি । অবসর নিয়েছেন টি-২০ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকেও । ওয়ানডে দলের অধিনায়ক হিসেবেও খুব বেশীদিন খেলা চালিয়ে যাবেন , এমন ভাবার কোন কারণ নেই ।

এদিকে বাংলাদেশের টেস্ট আর টি-২০ দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সাকিব আল হাসান । তবে তিনিও খুব একটা সুখী নন এই দায়িত্ব নিয়ে । বরং চলতি মাসের শুরুতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্ট হারার পর প্রকাশ্যেই জানিয়েছেন দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ার কথা । সেই থেকেই চলছে বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ অধিনায়ক নিয়ে আলোচনা ।

যদিও এখন পর্যন্ত বিসিবি (বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড) থেকে জাতীয় দলের অধিনায়ক পরিবর্তন নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয় নি । বরং সাকিবের অধিনায়কত্ব ছাড়ার কথায় বেশ খানিকটা উষ্মাই প্রকাশ করেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন । কিন্তু তাই বলে থেমে নেই আলোচনা ।

বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ অধিনায়ক হিসেবে বেশ কয়েকজনের নাম উঠে এসেছে । যদিও তাদের মধ্যে মুশফিকুর রহিম রাজী না ফের দলের নেতার দায়িত্ব নিতে । আরেক সিনিয়র খেলোয়াড় তামিম ইকবাল খান নিজেকে প্রমাণ করতে পারেন নি শ্রীলংকা সফরে নেতা হিসেবে । এমন অবস্থায় ভাবা হয়েছিল , ঘরোয়া ক্রিকেটে সফল মোসাদ্দেক আলী সৈকতের কথাও । কিন্তু তার ব্যাপারে স্পষ্ট ‘না’ বলে দিয়েছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ।

তাহলে বাকী রইল কে ? অবশ্যই মাহামুদুল্লাহ রিয়াদ । কারণ এই মুহূর্তে দলে স্থায়ী জায়গা নেয়া মাহামুদুল্লাহ রিয়াদের আছে দলকে নেতৃত্ব দেয়ার অভিজ্ঞতা । ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট এবং দুই ম্যাচের টি-২০ সিরিজে অধিনায়কত্ব করেছেন মাহমুদউল্লাহ। যদিও সেটা নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতির কারণে।

তবে এবার স্থায়ী দায়িত্ব পেলে সেই ‘চ্যালেঞ্জ’ নিতে রাজী বলে জানিয়েছেন মাহামুদুল্লাহ । মঙ্গলবার মিরপুরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালটি পণ্ড হওয়ায় যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রতিনিধি হয়ে আসেন মাহমুদউল্লাহ।

সেখানেই মাহামুদুল্লাহকে করা হয় নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন । জবাবে তিনি জানান , ‘ অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পাওয়া অনেক সম্মানের। যদি সেই সুযোগ আসে , তবে কেন নেব না ? ‘

সাকিবের অধিনায়কত্বে ‘অনিচ্ছা’ সম্পর্কে মাহামুদুল্লাহ জানান , ‘ ‘আমি কারো ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে মাথা ঘামাতে চাই না। তবে এটুকু বলতে পারি আমাকে দায়িত্ব দিলে আমি তা পালনের চেষ্টা করবো। মোদ্দা কথা, আমাকে বিবেচনায় আনা হলে আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করবো তা পালনের।’

আগামী মাসেই শুরু হচ্ছে জাতীয় ক্রিকেট লীগ । ভারত সফরের আগে খেলোয়াড়দের পরীক্ষা করতে এবার জাতীয় ক্রিকেটারদের এই আসরে অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক করেছে বিসিবি । এই বিষয়টিকে ইতিবাচক ভঙ্গিতে দেখছেন মাহামুদুল্লাহ ।

মাহামুদুল্লাহ জানান , ‘ জাতীয় ক্রিকেট লীগ আমাদের সবার জন্য খুব ভাল প্রস্তুতি হতে পারে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের জন্য । জাতীয় লীগে সবাই খুব সিরিয়াস থাকবে , নিশ্চিত । ‘

মাহামুদুল্লাহ জানান , ‘ জাতীয় ক্রিকেট লীগে ভাল খেলার জন্য মুখিয়ে আছে সিনিয়র খেলোয়াড়রা । আমিও তাকিয়ে আছি জাতীয় লীগের দিকে । ‘

মাহামুদুল্লাহ এখন পর্যন্ত দেশের হয়ে ৪৬ টেস্ট, ১৮৫ ওয়ানডে এবং ৮০ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন । 

আহাস/ক্রী/০০৫