Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ইনজুরিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষ আমিনুলের !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

নিজ দেশের মাটিতে চলমান ত্রিদেশীয় টি-২০ ক্রিকেট সিরিজের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ । জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে বাংলাদেশ দল বুধবার নিশ্চিত করে আসরের ফাইনালে খেলা । আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর মিরপুরের শের-এ-বাংলা স্টেডিয়ামে শিরোপা লড়াইয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ ।

বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে বাংলাদেশের পক্ষে অভিষেক হয়েছিল আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের । এই তরুণের আগমনে অনেক দিন পর বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলে একজন লেগ স্পিনারের অভাব পূরণ হয়েছে । ম্যাচে অভিষিক্ত বিপ্লব বল হাতে দেখান নজরকাড়া পারফর্মেন্স । ৪ ওভারে ১৮ রান দিয়ে ২ উইকেট নেন তিনি । এমন পারফর্মেন্সে আগামী ম্যাচেও বিপ্লবের জায়গা অনেকটা নিশ্চিত ছিল বাংলাদেশের একাদশে ।

কিন্তু বিধি বাম ! জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলায় ফিল্ডিং করার সময় হাতে চোট পেয়েছেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের পরের ম্যাচে তাই খেলা নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন এই লেগস্পিনার।

হ্যামিল্টন মাসাকাদজার একটি শট ঠেকাতে গিয়ে বাঁ হাতের তালুতে আঘাত পান বিপ্লব। এই আঘাত এতটাই গুরুতর ছিল যে তিনটি সেলাই পড়েছে ক্ষতস্থানে। রাত সাড়ে ১২টায় সেলাই করা হয় তার হাতে। সকালে টিম হোটেলে ব্যান্ডেজ বাঁধা অবস্থায় দেখা গেছে এই স্পিনারকে।

অবশ্য এই চোটের পরও আফগানদের বিপক্ষে খেলতে আত্মবিশ্বাসী বিপ্লব। ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতোও আশাবাদী। তিনি বলেন, এই লেগস্পিনারকে খেলানোর সম্ভাবনা এখনও শেষ হয়ে যায়নি। তবে এখনই কোনও কিছু নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। আজ সারাদিন দেখে তারপর বিস্তারিত জানানো যাবে। আপাতত ভয়ের কিছু নেই।

যদিও অন্য একটি সুত্র বলছে , আমিনুলের বাঁ-হাতে পড়েছে তিনটি সেলাই। ব্যথা আছে এখনও। সেটা দু’-একদিনেই হয়তো কমে যাবে। কিন্তু সেলাই নিয়ে খেলা প্রায় অসম্ভব হবে না তার। আর হাতে পড়া সেলাই খুলতেই লাগবে প্রায় সাতদিন। তার মধ্যে টি-২০ ত্রিদেশীয় সিরিজই শেষ হয়ে যাবে।

চোটটা অবশ্য আমিনুল নতুন করে পাননি। তার বাঁ-হাতে চোটটা আগে থেকেই ছিল। ঠিক সেখানেই আবার তিনি ব্যথা পেয়েছেন। এতেই এক ম্যাচ খেলে সিরিজ শেষ হওয়ার শঙ্কায় পড়ে গেছেন তিনি।

আমিনুল মূলত বয়সভিত্তিক এবং বাংলাদেশ ইমার্জি দলের হয়ে লেগ স্পিন অলরাউন্ডার হিসেবে খেলেন। ব্যাটিং পরিচয়টাই তার আগে মূখ্য ছিল। কিন্তু হাইপারফরম্যান্স দলে গিয়ে লেগ স্পিন নিয়ে বেশ ঘষামাজা হয়েছে তার। এইচপি কোচ হেলমট তাই জাতীয় দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গোকে তার ব্যাপারে সুপারিশ করেন। আর সেটা যে ভুল ছিল না , আমি প্রমাণ করেছেন প্রথম ম্যাচেই ।

আহাস/ক্রী/০০৭