Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

আম্পায়ারের ভুলে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

সদ্য সমাপ্ত আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা জিতেছে ইংল্যান্ড । শিরোপা জয়ের পথে রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে সুপার ওভারেও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ম্যাচটি ছিল টাই । কিন্তু ম্যাচে বেশী বাউন্ডারী মারার সুবাদ প্রথমবারের মত বিশ্বকাপ জিতে নেয় ইংল্যান্ড ।

কিন্তু ম্যাচ শেষ হবার ইংল্যান্ডের ইনিংসের একটি ঘটনা নিয়ে উঠেছে তুমুল বিতর্ক । লর্ডসে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ইংল্যান্ডের হিসেবে গেছে এমন একটি রান , যা আসলে তারা পায় না । সেই রান না হলে খেলা আর সুপার ওভারে গড়ায় না । নিউজিল্যান্ড হয়ে যায় বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন – এমনটাই বলছেন অনেক সমালোচক।

খেলার শেষ ওভারে ট্রেন্ট বোল্টের হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন ক্যাপ্টেন। সেই ওভারে ব্যাট করছিলেন ক্রিজে টিকে যাওয়া বেন স্টোকস। তবে কিউইদের দুর্ভাগ্য সঙ্গী চতুর্থ বলে। ডিপ মিড উইকেট থেকে ছোঁড়া বল রান নিতে থাকা স্টোকসের গায়ে লেগে বিক্ষিপ্ত হয়ে থার্ড ম্যান বাউন্ডারিতে আছড়ে পড়ে।

সেই বলেই দৌড়ে দু-রান পূর্ণ করে নিয়েছিলেন স্টোকস এবং আদিল রশিদ। অতিরিক্ত আরও চার রান যোগ হয়ে যায় ইংল্যান্ডের স্কোরবোর্ডে। অনফিল্ড আম্পায়ার মরিস ইরাসমাস এবং বাকি প্যানেলভুক্ত আম্পায়ারদের সঙ্গে আলোচনার পরে কুমার ধর্মসেনা ৬ রানের ইঙ্গিত দেন। অর্থাৎ শেষ ওভারের চতুর্থ বলে মোট ৬ রান যুক্ত হয়। এখানেই আম্পায়াররা আইসিসির নিয়ম ভেঙে ইংল্যান্ডকে অতিরিক্ত ১ রান দিয়েছে, এমনটাই অভিযোগ উঠেছে।

সমালোচকরা বলছেন, আইসিসির নিয়মে রয়েছে ওভার থ্রোয়ে যদি চার হয়, তবে তার আগে সেই রানই যোগ হবে, যে রান ব্যাটসম্যানরা ফিল্ডার বল ছোড়ার আগে শেষ করেছেন। অর্থাৎ গাপটিল বল ছোড়ার আগে যে রানটি স্টোকস ও রশিদ নিয়েছেন, সেই রানই যোগ হবে। প্রথম রান তারা শেষ করলেও দ্বিতীয় রান তারা নেওয়া শুরু করলেও ক্রস করেননি। তাই পরের সেই রানটি যোগ হওয়ার কথা নয়।

মার্টিন গাপটিল যখন বাউন্ডারি থেকে বল থ্রো করছিলেন, সেই সময় বেন স্টোকস-রশিদ কেবলমাত্র একটা রানই নিতে সক্ষম হয়েছিলেন। দ্বিতীয় রান তখনও সম্পন্ন করেননি। সেই হিসেবে বাউন্ডারির সঙ্গে অতিরিক্ত এক রানই যুক্ত হতে পারত। কিন্তু নিয়ম লঙ্ঘণ করেই এক রান অতিরিক্ত দেওয়া হয়েছে, এই অভিযোগই উঠেছে এখন।

আহাস/ক্রী/০০৭