Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাংলাদেশের বিপক্ষে সাহসী ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ক্রীড়ালক প্রতিবেদকঃ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে নিজ দেশের মাটিতে ওয়ানডে আর টেস্ট লড়াই দিয়ে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরছে বাংলাদেশ । করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘ আট মাসের বেশী সময় বিরতি দিয়ে টাইগারদের এই ফেরা । সিরিজে অংশ নিতে ইতোমধ্যেই বাংলাদেশে পা রেখেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জাতীয় ক্রিকেট দল ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষায় অধীর বাংলাদেশ অবশ্য পূর্ণশক্তির ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পাচ্ছে না । কারণ ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্কোয়াডে নেই তারকা ক্রিকেটারদের অনেকেই । জেসন হোল্ডার ,কেইরন পোলার্ড , ড্যারেন ব্র্যাভো , রোস্টন চেইজ , শেলডন কর্টরেল , শিমরান হেটমেয়ারদের কেউই আসছে না বাংলাদেশে । করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনিশ্চয়তার কারণে তারা নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বাংলাদেশ সফর থেকে । এছাড়া ব্যক্তিগত কারণে আসছে না অলরাউন্ডার ফ্যাবিয়েন অ্যালান ও কিপার ব্যাটসম্যান শন ডওরিচ।

নিয়মিত অধিনায়কদের অনুপস্থিতিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওয়ানডে দলের নেতৃত্ব দেবেন জেসন মোহাম্মদ। অন্যদিকে ওপেনার ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটকে করা হয়েছে টেস্ট দলের অধিনায়ক। যিনি বাংলাদেশে আগের সফরেও হোল্ডারের অনুপস্থিতিতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

মজার ব্যাপার হচ্ছে , করোনা মহামারীর তীব্রতার সময়েও পুরো শক্তির দল নিয়ে ইংল্যান্ড সফরে গিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ । এছাড়া ক্যারিবিয়ান তারকারা খেলেছেন আইপিএলসহ নানা দেশের টি-টুয়েন্টি ফ্রেঞ্চাইজি আসরে । কিন্তু বাংলাদেশে আসার ক্ষেত্রে তারা ভরসা পান নি !

রবিবার (১০ জানুয়ারি) বাংলাদেশে পা রেখেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় ক্রিকেট দলের বহর । তাদের রাখা হয়েছে নির্ধারিত হোটেলে জৈব-সুরক্ষা বলয়ে । প্রথম দফার করোনা পরীক্ষায় সবাই নেগেটিভ এসেছেন ।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) বাংলাদেশে এসে হোটেল থেকেই ভার্চুয়াল সংবাদ-সম্মেলনে অংশ নেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের কোচ ফিল সিমন্স । দলের প্রধান তারকাদের না আসাকে সমর্থন করে তিনি জানান , ‘ সবাই ভেবেচিন্তেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে । যারা আসে নি , সেটাও তাদের সিদ্ধান্ত । আমরা কারো উপর কোন সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিতে পারি না । ‘

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে নতুন আর অনভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের উপর ভরসা রেখে সিমন্স জানান , ‘ নতুনরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেদের জায়গা পাকা করার চেষ্টায় লড়বে । এটাই তাদের অনুপ্রেরণার জন্য যথেষ্ট । ‘

২০১৮ সালে সর্বশেষ বাংলাদেশ সফরে এসেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ । সেবার টেস্ট আর ওয়ানডে সিরিজে স্বাগতিকদের কাছে হেরেছিল ক্যারিবিয়ানরা ।

আসন্ন সিরিজে অবশ্য স্বাগতিকদের ‘ফেভারিট’ মেনে নিয়ে বলেছেন সিমন্স , ‘ বাংলাদেশ স্পষ্ট ফেভারিট। কারণ তারা ঘরের মাঠে ভালো খেলে। আমরা এটির সাথে দ্বিমত করতে পারি না।’

তবে নিজেদের জয়ের লক্ষ্যটা স্পষ্ট করে সিমন্স জানান , ‘ যে কোনো সিরিজ খেলার আগে লক্ষ্যটা থাকে জয়ের। প্রতিটি দল তাদের ঘরের মাঠে ভালো খেলে। সেদিক থেকে কাজটা সহজ হবে না। তবে আমাদের প্রথম লক্ষ্য সিরিজ জেতা। দ্বিতীয়ত, আমাদের ক্রিকেটারদের প্রস্তুত হওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে। আমরা যদি ভালো প্রস্তুতি নেই, তাহলে ঢাকা ও চট্টগ্রামে ভালো করার সুযোগ থাকবে।’

আহাস/ক্রী/০০১