Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বার্সেলোনায় ‘অসুখী’ গ্রিজম্যান ফিরলেন ফ্রান্সে

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

বার্সেলোনায় অনেক আশা নিয়ে এসেছিলেন এন্থইন গ্রিজম্যান । যদিও ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী ফরোয়ার্ড ঠিক যেন মানিয়ে নিতে পারছেন না বার্সেলোনায় । বার্সেলোনায় পুরো এক মৌসুম কাটিয়ে নিজের সুনাম রক্ষাই যেন এখন দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে গ্রিজম্যানের জন্য । চলতি মৌসুমেও সেই ব্যর্থতা চলছে । এমন পরিস্থিতিতেই বার্সেলোনা ছেড়ে নিজ দেশে ফিরেছেন গ্রিজম্যান ।

আগামী দশদিনের মধ্যে তিনটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে ফ্রান্স । আগামী বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) ফ্রান্সের প্রীতি ম্যাচ ইউক্রেইনের বিপক্ষে । এই ম্যাচটি ফ্রান্স খেলবে উয়েফা নেশন্স লীগের পরবর্তী দুইটি ম্যাচের প্রস্তুতি হিসেবে । কারণ সোমবার (১২ অক্টোবর) বর্তমান বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের ‘মহারণ’ ইউরোপ আর উয়েফা নেশন্স লীগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালের বিপক্ষে । এই দুইটি ম্যাচই ফ্রান্স খেলবে নিজেদের মাঠ প্যারিসের স্তাদে ডি ফ্রান্সে ।

আর পরবর্তী বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) উয়েফা নেশন্স লীগে ফ্রান্সের মোকাবেলা ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে । এই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ক্রোয়েশিয়ার ম্যাক্সিমির স্টেডিয়ামে । ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে এই ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়েই দ্বিতীয় শিরোপা জিতেছিল ফ্রান্স । গেলো মাসে নেশন্স লীগের ম্যাচেও ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে জিতেছে ফ্রান্স । সেটাও বিশ্বকাপ ফাইনালের মতো ৪-২ গোলের ব্যবধানে ।

আসন্ন তিনটি আন্তর্জাতিক ম্যাচকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) থেকে প্যারিসে অনুশীলন শুরু করবে ফ্রান্সের জাতীয় দল । লা ব্লুজদের সেই অনুশীলনে যোগ দিতেই দেশে ফিরেছেন গ্রিজম্যান ।

২০১৯ সালে গ্রিজম্যান যোগ দিয়েছেন বার্সেলোনায় । যদিও ২০০৯ সাল থেকেই তিনি আছেন স্পেনের ক্লাব ফুটবলে । টানা পাঁচ মৌসুম খেলেছেন রিয়েল সোসিদাদে । এই সময়ে সোসিদাদের হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ২০১ ম্যাচে করেছেন ৫২ গোল ।

পরবর্তী সময়টা গ্রিজম্যানের কেটেছে স্পেনের অন্যতম জায়ান্ট এথলেটিকো মাদ্রিদে । সেখানেও কাটিয়েছেন পাঁচটি বছর । লা ব্লাংকোস রোজাদের হয়ে সব মিলিয়ে ২৫৭ ম্যানে ১৩৩ গোল আছে তার । এই ক্লাবের হয়ে একবার করে জিতেছেন উয়েফা ইউরোপা লীগ , উয়েফা সুপার কাপ আর স্প্যানিশ সুপার কোপা । এছাড়া ২০১৫-১৬ মৌসুমে খেলেছেন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফাইনালে ।

এথলেটিকো মাদ্রিদে খেলেই দুইবার ব্যালন ডি অর’ এ তৃতীয় আর একবার ফিফা বর্ষসেরায় তৃতীয় সেরা ফুটবলার হয়েছেন গ্রিজম্যান । এছাড়া ২০১৫-১৬ মৌসুমে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো আর লিওনেল মেসিদের হারিয়ে হয়েছেন লা লীগার বর্ষসেরা ফুটবলার । মোট কথা , এথলেটিকো মাদ্রিদে নিজের সময়টাই কাটিয়েছেন গ্রিজম্যান ।

কিন্তু বার্সেলোনায় এসে ঘটেছে ছন্দপতন । ২০১৯ সালে ১২০ মিলিয়ন ইউরো রিলিজ-ক্লজ মিটিয়ে কাটালানরা দলে ভেড়ায় গ্রিজম্যানকে । সেই থেকে এখন পর্যন্ত বার্সার জার্সিতে ৫১ ম্যাচে মাত্র ১৫ গোল করেছেন এই ফরাসী ফরোয়ার্ড । চলতি মৌসুমে তিনটি লা লীগা ম্যাচ খেলেও কোন গোলের দেখা পান নি গ্রিজম্যান ।

বার্সেলোনায় ম্লান গ্রিজম্যানের পারফর্মেন্সে ক্ষেপেছেন ফ্রান্স জাতীয় দলের কোচ দিদিয়ের দেশাম্প । ফ্রান্সের হয়ে খেলোয়াড় আর কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জেতা দেশাম্প মনে করেন , বার্সেলোনাই সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারছে না গ্রিজম্যানকে !

দেশাম্প মনে করেন , গোল করার সহজাত ক্ষমতা থাকা গ্রিজম্যানের খেলার ধরণ বার্সেলোনার সাথে মিলছে না । বার্সেলোনায় তাকে আরও বেশী জায়গা করে খেলতে দেওয়া উচিৎ । তাকে সেন্ট্রাল-ফরোয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করলেই বেশী ফলাফল পাওয়া যায় । যেটা করেন নি বার্সার পূর্ববর্তী দুই কোচ আর্নেস্তো ভেলভার্দে আর কুইকে স্যাতিয়েন । বর্তমানে একই ভুল করছেন রোনাল্ড কোম্যান ।

দেশাম্প জানান , ‘ বার্সেলোনা তাদের খেলোয়াড়দের কিভাবে খেলাবে সেটা নিয়ে আমার কোন কথা বলা উচিৎ না । কিন্তু আমি গ্রিজম্যানকে বুঝি । তাকে রাইট উইং পজিশনে খেলানো ভুল । সে সেন্ট্রাল পজিশনে খেলায় বেশী স্বস্তি বোধ করে । আমার দলে সেই ‘হৃৎপিণ্ড’ । এমনকি মধ্যমাঠেও সাহায্য করে । এটাই গ্রিজম্যানের ধরণ । ‘

ফরাসী কোচ জানান , ‘আমি নিশ্চিত বার্সেলোনায় সে সুখী নয় ! ‘

তিনি জানান , ‘ রাইট উইঙ্গার হিসেবে বল ধরে খেলায় কিংবা প্রতিপক্ষের একাধিক খেলোয়াড়কে কাটিয়ে সামনে এগুনো গ্রিজম্যানের স্বভাব নয় , এই সামর্থ্য তার নেই । সে গোল করতে পারে । সেটাই তাকে করতে দেয়া উচিৎ । ‘

দেশাম্প অবশ্য গ্রিজম্যানের সমালোচনাও করেছেন । সর্বশেষ লীগ ম্যাচে সেভিয়ার বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে বার্সেলোনা । সেই ম্যাচে ভাল দুইটি সুযোগ নষ্ট করেছেন ফরাসী তারকা । দেশাম্প বলেছেন , ‘ গ্রিজম্যানের মতো খেলোয়াড়ের সেই দুইটি সুযোগ থেকে একটি গোল করা উচিৎ ছিল । ‘

সবশেষে দেশাম্প বলেছেন , আমি আমার দলে (ফ্রান্স) গ্রিজম্যানকে সেন্ট্রাল পজিশনেই রাখব । আশা করি সে আগের মতো সফল হবে । সে ফ্রান্সের সম্পদ । ‘

এখন পর্যন্ত ফ্রান্সের হয়ে ৮০ ম্যাচে ৩১ গোল করেছেন গ্রিজম্যান । গত বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সেরা গোলদাতা আর তৃতীয় সেরা ফুটবলার ছিলেন তিনি । এছাড়া ২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশী এসিস্ট এসেছিল গ্রিজম্যানের কাছ থেকে । ২০১৬ সালে ফ্রান্সের বর্ষসেরা ফুটবলার ছিলেন গ্রিজম্যান । সেবার ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়িনশিপের ফাইনালে পর্তুগালের কাছে হেরেছিল ফ্রান্স । সেই আসরে ছয় গোল করে সেরা গোলদাতার ‘গোল্ডেন বুট’ জিতেছিলেন গ্রিজম্যান ।

আহাস/ক্রী/০০৪