Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বিশ্বকাপ সুপারলীগের ওয়ানডে স্কোয়াড ঘোষণা

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

করোনা মহামারীর কারণে যখন বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলে ক্রিকেট বন্ধ , ঠিক তখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জমজমাট ইংল্যান্ডে । ইতোমধ্যেই ইংল্যান্ড তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলে ফেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে । এখন অপেক্ষা আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলার । এখানেই শেষ না , আগামী মাসেই শুরু হচ্ছে পাকিস্তানের বিপক্ষে ইংলিশদের তিনটি করে টেস্ট আর টি-টুয়েন্টি ম্যাচের লড়াই ।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) মাঠে গড়াচ্ছে আয়ারল্যান্ড আর ইংল্যান্ডের মধ্যকার প্রথম ওয়ানডে ম্যাচ । সিরিজের বাকী দুই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ১ এবং ৪ আগস্ট । সব কয়টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে সাউদাম্পটনের অ্যাগিয়াস বোল স্টেডিয়ামে ।

মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচের জন্য ১৪ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে আয়ারল্যান্ড ।

ইংল্যান্ড আর আয়ারল্যান্ডের ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে নতুন যুগে প্রবেশ করতে চলেছে ক্রিকেট । এই সিরিজটি ‘ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগ’ এর অংশ ।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের আদলে ১৩ দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে ‘ওয়ানডে বিশ্বকাপ সুপার লীগ’ । এই ওয়ানডে সুপার লিগের ফলাফলের উপর নির্ভর করছে ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে কারা কারা খেলার সুযোগ পাবে। এই টুর্নামেন্টে মোট ১৩টি দল খেলবে। ৩ বছর ধরে চলা এই লিগে প্রতিটি দল ঘরে বাইরে মিলিয়ে মোট আটটি তিন তিন ম্যাচের সিরিজ খেলবে। সিরিজ জিতলে জয়ী দলকে দেওয়া হবে ১০ পয়েন্ট করে। কোনও কারণে ড্র হলে ৫ পয়েন্ট করে দুই দলের মধ্যে ভাগ হবে। লিগের প্রথম সাতটি দল ও আয়োজক দেশ সরাসরি বিশ্বকাপের যোগ্যতা পাবে। শেষ পাঁচটি দলকে অ্যাসোসিয়েট দেশগুলির বিরুদ্ধে খেলতে হবে শেষ দুটি স্থানের জন্য।

২০২৩ সালের স্বাগতিক হওয়ায় ওয়ানডে বিশ্বকাপে সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে ভারত । ভারতীয়রা সেরা ষাট র‍্যাংকিংয়ে থাকলে অষ্টম দল পাবে সরাসরি খেলার সুযোগ ।

বিশ্বকাপ সুপার লীগ আয়োজনের ফলে আয়ারল্যান্ড , আফগানিস্তান , জিম্বাবুয়ে আর হল্যান্ডের মত দলের সামনে ভাল সুযোগ এসেছে বেশী করে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার । আগামী তিন বছরে অন্তত ২৪টি করে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে খেলা তাদের নিশ্চিত । এতে ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা আরও বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে । বাড়বে প্রতিদ্বন্দ্বিতাও । সাম্প্রতিক সময়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু হওয়ায় বেড়েছে পাঁচদিনের ম্যাচের আকর্ষণ ।

এদিকে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম বিশ্বকাপ সুপার লীগ সিরিজের জন্য ঘোষিত আয়ারল্যান্ড স্কোয়াডে রাখা হয় নি মার্ক অ্যাডায়ারকে ।

ডানহতি এই পেস বোলার অ্যাঙ্কেলের অস্ত্রোপচারের পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তবে পুরোপুরি ম্যাচ ফিটনেস ফিরে না পাওয়ায় তাকে প্রথম ওয়ানডের দলে বিবেচনা করা হয়নি। অথচ ২০১৯ সালে দলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি ছিলেন অ্যাডায়ার।

তবে ২২ সদস্যের দল নিয়ে ইংল্যান্ডে খেলতে গেছে আয়ারল্যান্ড। প্রতি ম্যাচেই তারা দল পরিবর্তন করতে পারবে। তাই অ্যাডায়ারের পরের ওয়ানডেগুলোতে ফেরার সুযোগ ঠিকই থাকছে।

আয়ারল্যান্ড দল : অ্যান্ড্রু বালবিরিন, পল স্টার্লিং, কার্টিস ক্যামফার, গ্যারেথ ডেলানি, জশ লিটল, অ্যান্ড্রু বেকব্রিন, বেরি ম্যাকার্থি, কেভিন ও’ব্রায়েন, উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড, বয়েড রেনকিন, সিমি সিং, হ্যারি টেকটর, লরকান টাকের, ক্রেইগ ইয়ং।

আহাস/ক্রী/০০৩