Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

যত দোষ নন্দ ঘোষ !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

বরাবরই ঘরের মাঠের ‘বড় বাঘ’ বার্সেলোনা । বিশেষ করে বড় প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ‘এওয়ে’ ম্যাচে বার্সেলোনার হতশ্রী চেহারা দেখা যায় প্রায়শই । সেটা স্পেনের ঘরোয়া ফুটবল আসর হউক , কিংবা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ – বার্সেলোনার বড় বড় সব হার এসেছে প্রতিপক্ষের মাঠেই । কিন্তু চলতি মৌসুমে বার্সেলোনা যেন এক কাঠি সরেস । অপেক্ষাকৃত ছোট দলের বিপক্ষেও তারা জিততে পারছে না ঘর থেকে দূরে গিয়ে ।

২০১৯-২০ লা লীগা মৌসুমে এখন পর্যন্ত ১৬ এওয়ে ম্যাচের মাত্র ছয়টি জিতেছে বার্সেলোনা । পাঁচটি করে ম্যাচ হেরেছে আর ড্র করেছে । এখন পর্যন্ত এওয়ে ম্যাচের বিপর্যয়ের কারণেই ৩২ ম্যাচে ৬৯ পয়েন্ট নিয়ে লীগ টেবিলের দ্বিতীয় অবস্থানে আছে বার্সা । সমান ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান রিয়েল মাদ্রিদের ।

আগামী সপ্তাহে বার্সেলোনা খেলতে যাবে ভিয়ারিয়েলের মাঠে । ৩২ ম্যাচে ৫১ পয়েন্ট নিয়ে লীগ টেবিলের পাঁচে আছে ভিয়ারিয়েল । ‘ইয়োলো সাবমেরিন’ খ্যাত দলটি আবার আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে সরাসরি খেলার সম্ভাবনায় আছে । ফলে নিজেদের মাঠে বার্সেলোনাকে তারা যে ছেড়ে দেবে না সেটা নিশ্চিত । আর চলতি মৌসুমে মাত্র তিনটি ম্যাচ নিজেদের মাঠে হারা ভিয়ারিয়েলের ফর্মটাও দুর্দান্ত । সব মিলিয়ে ভিয়ারিয়েলের ম্যাচের আগে দারুণ দুশ্চিন্তায় আছে বার্সেলোনার স্কোয়াড ।

ভিয়ারিয়েল ছাড়াও রিয়েল ভায়াদোলিদ আর আলাভেসের সাথে ‘এওয়ে ম্যাচ’ খেলতে হবে বার্সার ।

করোনা মহামারীর অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতি কাটিয়ে মাঠে ফেরা বার্সেলোনা পাঁচ পয়েন্ট নষ্ট করেছে সর্বশেষ তিন এওয়ে ম্যাচে । শনিবার ২-২ গোলে ড্র করেছে সেল্টা ভিগোর সাথে । ম্যাচে বার্সেলোনার হয়ে দুই গোলই করেন লুইস সুয়ারেজ । কিন্তু ম্যাচের পর চিন্তিত উরুগুইয়ান তারকা জানান , ‘ আমরা খুব ভাল অবস্থায় নেই । বিশেষ করে এওয়ে ম্যাচে আমাদের আরও ভাল করতে হবে । এওয়ের ম্যাচের সমস্যা সমাধান করতে না পারলে আমাদের বিপদে পড়তে হবে । ‘

‘ভিগো’ দেয়া সাক্ষাৎকারে সুয়ারেজ বলেছেন , ‘ আমাদের কি সমস্যা সেটা আসলে কোচকে খুঁজে বের করতে হবে । মাঠে আমরা , খেলোয়াড়রা , সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করছি । কিন্তু কাজ হচ্ছে না । কোচকে এখন ভাবতে হবে , কেন আমরা প্রতিপক্ষের মাঠে পারছি না । ‘

সুয়ারেজ শুধু কোচ কুইকে স্যাতিয়েনের উপর দায় চাপাচ্ছেন । যদিও খোদ অধিনায়ক লিওনেল মেসিও এই দায় থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন না । কারণ এই মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে বার্সার অধিনায়ক যে ২৬ গোল করেছেন তাঁর ২১টি এসেছে ন্যু ক্যাম্পে । অর্থাৎ বার্সার সবচেয়ে বড় অস্ত্র মেসিও কার্যত নিষ্কর্মা থাকছেন প্রতিপক্ষের মাঠে । অন্যরাও অনেকটা তাই ।

সেল্টা ভিগোর ম্যাচে স্যাতিয়েনের দল নির্বাচন নিয়েও সমালোচনা হচ্ছে । সেই ম্যাচে তিনি শুরু থেকে মাঠে নামান নি আর্থার মেলো আর এন্থইন গ্রিজম্যানকে । নামিয়েছেন বদলি হিসেবে । এই নিয়ে ড্রেসিং রুমে ম্যাচ শেষে কয়েকজন খেলোয়াড়ের সাথে স্যাতিয়েনের ঝামেলার কথা জানিয়েছে স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক ‘মার্কা’ ।

মার্কা’র খবর , কোচ স্যাতিয়েনের অনেক সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছেন না খেলোয়াড়রা । যাদের মধ্যে আছেন অধিনায়ক মেসি আর সুয়ারেজের মত সিনিয়র তারকা । তারা মনে করছেন , স্যাতিয়েন যেভাবে দল চালাচ্ছেন তাতে মৌসুম শেষে ট্রফিশুন্য থাকতে হবে দলকে ।

চলতি বছরের সুপার কোপা (সৌদি আরবে) ফাইনালে হারের পর বরখাস্ত হন আর্নেস্তো ভেলভার্দে । তাঁর জায়গায় স্যাতিয়েন দায়িত্ব নিয়ে দলের অবস্থা পরিবর্তন করতে পারেন নি । বরং মৌসুম শেষে এখন ট্রফি শুন্য থাকার শঙ্কায় বার্সা । যদিও এখনও লা লীগা আর চ্যাম্পিয়ন্স লীগের স্বপ্ন বেঁচে আছে কাটালানদের । কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলে বার্সেলোনাকে পড়তে হবে নতুন বিপদে । কারণে শেষ আট থেকে ইউরোপের সেরা ক্লাব আসরের সব ম্যাচ এবার হবে পর্তুগালের মাঠে । সেই ক্ষেত্রে বার্সেলোনা তাদের ‘এওয়ে ম্যাচ’ জুজু কিভাবে কাটাবে সেটাই চিন্তা ।

সব মিলিয়ে মাত্র ছয় মাস পুরো না হতেই চাকুরি নিয়ে শংকায় এখন বার্সেলোনার কোচ স্যাতিয়েন । লা লীগা আর চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ব্যর্থতা মৌসুম শেষে কেঁড়ে নিতে পারে তাঁর চাকুরিটা , এই সম্ভাবনা এখন প্রবল ।

আহাস/ক্রী/০০৩