Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ঘরের মাঠেও আস্থার সংকটে বার্সেলোনা !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

সময়টা যেন একেবারেই ভাল যাচ্ছে না বার্সেলোনার । স্প্যানিশ লা লীগার শিরোপা জয়ের দৌড়ে খানিকটা পিছিয়ে দলটিতে চলছে চরম আস্থার সংকট । সেই সাথে বিরাজমান দলীয় কোন্দল , যার খবর দিচ্ছে খোদ স্প্যানিশ মিডিয়া । বিশেষ করে কোচ কুইকে স্যাতিয়েনের সাথে খেলোয়াড়দের দূরত্ব বেড়ে চলেছে ক্রমশ । এমন অবস্থায় বার্সেলোনা কি পারবে কোন ট্রফি জয় করে মৌসুম শেষ করতে ?

ট্রফি জয়ের প্রশ্নের উত্তর মিলবে আরও পরে । তবে আপাতত বার্সেলোনা ভাবছে লা লীগার তৃতীয় শক্তি এথলেটিকো মাদ্রিদ লড়াই নিয়ে । বুধবার ( ১ জুলাই) বাংলাদশ সময় রাত দুইটাই নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে দিয়াগো সিমিওনিদের আতিথ্য দেবে স্যাতিয়েনের দল ।

এই মুহূর্তে ৩২ ম্যাচে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে লা লীগার শীর্ষে আছে রিয়েল মাদ্রিদ । সমান ম্যাচে দুই পয়েন্ট কম পাওয়া বার্সেলোনার অবস্থান দ্বিতীয় । আর তিনে থাকা এথলেটিকো মাদ্রিদ পেয়েছে ৫৮ পয়েন্ট । নিজেদের মাঠে এথলেটিকো মাদ্রিদকে হারাতে না পারলে বার্সেলোনা অনেকটাই পিছিয়ে যাবে লীগ শিরোপা লড়াই থেকে । অন্যদিকে হেরে গেলে এথলেটিকো মাদ্রিদকে ধরে ফেলার একটা সুযোগ পাবে চারে থাকা সেভিয়া । যাদের পয়েন্ট ৩২ ম্যাচে ৫৪ । কাজেই এই ম্যাচটি হারতে রাজী না লা রোজা ব্লাংকোসরাও ।

এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে খেলা বলে খানিকটা হলেও স্বস্তিতে বার্সেলোনা । যদিও সাম্প্রতিক ফলাফলের বিবেচনায় বার্সেলোনার চেয়ে বেশী আত্মবিশ্বাসী এথলেটিকো মাদ্রিদ । করোনা বিরতির পর মাঠে ফেরা সিমিওনের দল পাঁচ ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই পেয়েছে জয় । আর টানা চার জয়ের দুইটি এসেছে প্রতিপক্ষে মাঠে ।

অন্যদিকে বার্সেলোনা সর্বশেষ তিন ম্যাচের দুইটিতেই ড্র করে পয়েন্ট হারিয়েছে । যদিও করোনা বিরতির পর ফেরা দলটি নিজেদের মাঠে দুই ম্যাচেই হারিয়েছে লেগানেস আর বিলবাওকে । ফলে ন্যু ক্যাম্পে এথলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে খানিকটা হলেও এগিয়ে থাকছে কাটালানরা ।

কিন্তু গোল বেঁধেছে বার্সার ড্রেসিং রুমে । কোচ স্যাতিয়েনের সাথে খেলোয়াড়দের সম্পর্ক দিনদিন খারাপ হচ্ছে । করোনা বিরতির আগেই অধিনায়ক লিওনেল মেসি জানিয়েছিলেন , যেভাবে দল চলছে তাতে বার্সার পক্ষে কোন ট্রফি জয় সম্ভব না !

মেসি প্রায় সরাসরি দুষেছিলেন কোচকে । সেল্টা ভিগোর সাথে সর্বশেষ ম্যাচের পর সরাসরি কোচের দিকে আঙ্গুল তুলেছেন লুইস সুয়ারেজ ।

শুধু মেসি বা সুয়ারেজ নন, দলের অন্যদেরও মতবিরোধ আছে কোচের সঙ্গে, সেটাও পরিষ্কার সেল্টা ম্যাচের সময়ই। কুলিং ব্রেকে খেলার কৌশল বুঝিয়ে দেয়ার কাজটা করেছেন সহকারী কোচ এডের সারাবিয়া। সেতিয়েন এসময় পাশেই ছিলেন, কিন্তু কেউ তাকে পাত্তা দেননি কিংবা নিজ থেকে কারো সঙ্গে কথাও বলেন নি কোচ।

শোনা যাচ্ছে , বার্সেলোনার সিনিয়র খেলোয়াড়েরা কোচকে ঠিব মানেনা। তার পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলার চেষ্টাও করেন না। শুধু তা-ই নয় ঠিক মতো অনুশীলনও করেন না। বার্সেলোনার মত দলের জন্য এটা অবশ্যই খুব ভাল খবর না ।

এদিকে কোচের উপর দোষ দিয়ে পাড় পাওয়ার চেষ্টায় আছে মেসিরা । যদিও দলের খেলোয়াড়দের পারফর্মেন্স বলছে অন্যকথা । মেসি নিজে চলতি মৌসুমে সব মিলিয়ে করেছেন ২৬ গোল । যার মধ্যে ২১টি ঘরের মাঠে । প্রতিপক্ষের মাঠে ফ্লপ থাকা মেসির জন্যেও দল ভুগছে , এই কথা বোলার কেউ নাই ।

সর্বশেষ তিন ম্যাচে গোল পান নি মেসি । আটকে আছেন ৬৯৯ গোলের চক্রে । অবশ্য নিজেদের মাঠে এথলেটিকোর বিপক্ষে ক্যারিয়ারের ৭০০তম গোলটি তুলে নিতে চেষ্টার কমতি করবেন না আর্জেন্টিনার সুপারস্টার , এটা নিশ্চিত ।

এদিকে ১২০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে কেনা এন্থইন গ্রিজম্যান গত পাঁচ ম্যাচে কোন গোল পান নি । তিনি জায়গা হারাচ্ছেন ১৭ বছরের আনসু ফাতিহর কাছে । তবে সাবেক দলের বিপক্ষে গ্রিজম্যানকে শুরু থেকেই রাখার পরিকল্পনায় আছেন স্যাতিয়েন ।

এদিকে ব্রাজিলিয়ান আর্থার মেলো এই মৌসুম শেষেই পাড়ি জমাচ্ছেন জুভেন্টাসে । বর্তমান দলের প্রতি তাঁর আনুগত্য কিংবা খেলায় মন নিয়ে অনেকটাই সন্দিহান কেউ কেউ । বিশেষ করে আর্থারের অনিচ্ছা স্বত্বেও জুভেন্টাসে বিক্রি করে দেয়ার বিষয়টা অভিমানী করে তুলেছে ব্রাজিলিয়ান তরুণকে । তিনি এখন কোনমতে মৌসুম শেষ করে তুরিনের ডেরায় মন দিতে আগ্রহী ।

অন্যদিকে ফ্রাংকি ডি ইয়াংয়ের ইনজুরি বার্সাকে ভোগাচ্ছে । যার সমাধান হয় নি । এছাড়া নেই স্যামুয়েল উমাতিতিও । ইনজুরির কারণে নেই সার্জিও রবার্টো আর উসমান ডেম্বেলে । সব মিলিয়ে বার্সেলোনা আসলেই আছে সমস্যায় ।

সারবিক পরিস্থিতি বিচারে ঘরের মাঠে এথলেটিকো মাদ্রিদের সাথে হোঁচট না খেয়ে বসে বার্সেলোনা , এই শংকায় এখন ভক্তরা ।

আহাস/ক্রী/০০২