Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

হাল্যন্ডই ভবিষ্যতের রোনাল্ডো !

আহসান হাবীব সুমন/ক্রীড়ালোকঃ

এই মুহূর্তে বিশ্ব ফুটবলে উদীয়মান তারকাদের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত নাম ‘আর্লিং ব্রাট হাল্যান্ড’ । এখনও ‘টিন-এজ’ পর্যায়ে থাকা নরওয়ের তরুণ স্ট্রাইকারকে অনেকেই মনে করছেন আগামীদিনের সুপারস্টার । এমনকি ব্রাজিলের বিশ্বকাপজয়ী সাবেক তারকা ফুটবলার রিভালদো পর্যন্ত হাল্যান্ডের মধ্যে দেখেছেন বড় ফুটবলার হবার সম্ভাবনা ।

রিভালদো মনে করেন , ভবিষ্যতে ব্রাজিলিয়ান গ্রেট রোনাল্ডো নাজারিও’র পর্যায়ে যাওয়ার মত প্রতিভা আছে হাল্যান্ডের । যদিও এখনই রিভালদো তার সাবেক সতীর্থ রোনাল্ডোর উত্তরসুরি হিসেবে হাল্যান্ডকে ভাবতে নারাজ । তিনি বরং তরুণ হাল্যান্ডকে আরও সময় দেয়ার পক্ষপাতী ।

২০০২ সালে ব্রাজিলের পঞ্চম বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম কারিগর ছিলেন রিভালদো আর রোনাল্ডো । জাপান-দঃ কোরিয়ার যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত সেই বিশ্বকাপে আট গোল করে ‘গোল্ডেন বুট’ জিতেছিলেন রোনাল্ডো । পাঁচ গোল করেছিলেন রিভালদো । বিশ্বকাপের ইতিহাসে মোট ১৫ গোল করে রোনাল্ডো দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা । ১৯৯৪ সালে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন রোনাল্ডো , যদিও কম বয়সের কারণে সেবার তাকে মাঠে নামানো হয় নি । ১৯৯৮ সালে ব্রাজিলকে ফাইনালে উঠিয়ে আসরে খেলোয়াড়ের ‘গোল্ডেন বল’ জেতেন রোনাল্ডো ।

ব্রাজিলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার রোনাল্ডো সমান পরিচিত ‘দা ফেনোমেন’ নামে ।

অন্যদিকে ২০০০ সালের ২১ জুলাই জন্ম নেয়া হাল্যান্ডের বয়স এখনও বিশ পুরোয় নি । কিন্তু এই বয়সেই তিনি পরিনত হয়েছেন বিশ্বের আলোচিত ফুটবলারে । ২০১৯ সালের ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপে তিনি জিতেছেন সেরা গোলদাতার ‘গোল্ডেন বুট’ ।

চলতি মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লীগ গ্রুপ পর্বে অস্ট্রিয়ার ক্লাব রেডবুল সুলজবার্গের হয়ে করেছেন আটগোল । আর নক আউট পর্বে বুরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে পিএসজির বিপক্ষে করেছেন জোড়া গোল । ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে উইয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগের একই আসরে দুইটি ভিন্ন ক্লাবের হয়ে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন হাল্যান্ড ।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে সুলজবার্গ ছেড়ে হাল্যান্ড যোগ দিয়েছেন জার্মানির অন্যতম বড় ক্লাব ডর্টমুণ্ডে । সেখানেও তিনি করে চলেছেন একের পর গোল । এখন পর্যন্ত বুরুশিয়ার হয়ে ১০ ম্যাচ খেলে সব প্রতিযোগিতায় ১৩ গোল করেছেন তিনি । জার্মান লীগে গড়েছেন বদলী হিসেবে মাঠে নেমে সবচেয়ে কম বয়সে আর কম সময়ে হ্যাট্রিক করার রেকর্ড । আছে ক্লাবের হয়ে সবচেয়ে কম বয়সে টানা গোলের রেকর্ড ।

২০১৯-২০ মৌসুমে সুলজবার্স আর বুরুশিয়ার হয়ে ইতোমধ্যে সব মিলিয়ে ৪২ গোল করে ফেলেছেন হাল্যান্ড । মৌসুম শেষে তার গোলের সংখ্যা পঞ্চাশের ‘ম্যাজিক ফিগার’ ছাড়াবে , এটা নিশ্চিত ।

হাল্যান্ডের সাম্প্রতিক পারফর্মেন্স বলছে , তাকে মাতামাতি করার যথেষ্ট কারণ আছে আর সেটা সঙ্গত । ব্রাজিলিয়ান সাবেক সুপারস্টার রিভালদো নিজেও হাল্যান্ড সম্পর্কে জানিয়েছেন নিজের মুগ্ধতার কথা । যদিও এখনই তিনি তাকে বড় কোন সার্টিফিকেট দিতে নারাজ ।

রিভালদো জানিয়েছেন , ‘ হাল্যান্ড দারুণ সম্ভাবনাময় ফুটবলার । তার অনেক সুযোগ আছে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছানোর ।’

তিনি বলেন , ‘ইতোমধ্যে অনেকেই রোনাল্ডো নাজারিওর নাজারিওর সঙ্গে হালান্ডের খেলার ধরনের তুলনা শুরু করেছেন। হ্যাঁ , হাল্যান্ড দারুণ শক্তিশালী খেলোয়াড় । তার গতি আছে , আছে সাহস । আর প্রচুর গোল করার ক্ষমতাও আছে তার । এদিক থেকে রোনাল্ডো নাজারিওর সাথে তার কিছু মিল আছে । কিন্তু আমি এখনই তাকে নাজারিওর সাথে তার তুলনা করতে নারাজ । ‘

রিভালদো জানান , ‘রোনাল্ডোর উত্তরসুরি হিসেবে হাল্যান্ড কতদূর যাবে , সেটা সময়েই বলে দেবে । তবে এখনই প্রত্যাশার বাড়তি চাপ তার ক্যারিয়ারের জন্য ভাল নাও হতে পারে । তাকে তার মত খেলতে দেয়া উচিৎ । ‘

ইতোমধ্যেই হাল্যান্ডকে পেতে বড় ধরণের পরিকল্পনা করেছে স্পেনের রিয়েল মাদ্রিদ । হাল্যান্ড নিজেও ভবিষ্যতে জার্মানি ছেড়ে স্পেনে খেলতে আগ্রহী বলে জানিয়েছেন ।

এই নিয়ে সাবেক বার্সেলোনা তারকা রিভালদো জানান , ‘ভবিষ্যতে হাল্যান্ড লা লীগায় খেলবেন বড় অর্থের বিনিময়ে । ইতোমধ্যেই রিয়েল মাদ্রিদ তাকে পেতে চায় বলে শুনতে পাচ্ছি । সেখানে সে ভাল করবে । স্প্যানিশ ফুটবলকে সমৃদ্ধ করার মতো যথেষ্ট গুণাবলী এরই মধ্যে সে দেখিয়েছে। গোলপোস্টের সামনে সে নির্মম! এটা তার জন্য সুবিধাজনক পরিস্থিতি তৈরি করেছে। বার্সেলোনাও তার জন্য একটি ভালো বিকল্প হতে পারে।’

রিভালদো স্বীকার করেন , ‘মাত্র ১৯ বছর বয়সেই সে একজন দুর্দান্ত খেলোয়াড়। তবে ভবিষ্যতে সে আরও উন্নতি করতে পারে এবং আক্রমণভাগে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়দের একজন হতে পারে।’

আহাস/ক্রী/০০২