Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

যুদ্ধে নেমে গেলেন রোনালদো

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

প্রাণঘাতী করোনা-ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ছে সারা বিশ্বের মানুষ । মহামারী আকার ধারণ করা এই ভাইরাসকে হারাতে যে যার জায়গা থেকে বাড়িয়ে দিচ্ছেন সাহায্যের হাত । আধুনিক ফুটবল সম্রাট ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও বসে নেই । তিনিও করোনা-ভাইরাসের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধে নেমে গেছেন । এই ক্ষেত্রে বিশ্বসেরা ফুটবলারের সহযোগী হয়েছেন তারই এজেন্ট জর্জ মেন্ডেস ।

রোনালদো আর মেন্ডেস মিলে প্রাথমিকভাবে গঠন করেছেন ১ মিলিয়ন পাউন্ডের তহবিল । বাংলাদেশী টাকায় যার পরিমান প্রায় ১০ কোটি টাকা । চলছে সেই তহবিল বাড়াবার চেষ্টা ।

এই মুহূর্তে করোনা-ভাইরাস ভাইরাসের কারণে সারা বিশ্বের খেলাধুলা বন্ধ । বন্ধ ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবল প্রতিযোগিতা আর দেশীয় ঘরোয়া লীগ । বন্ধ রয়েছে ইটালিয়ান সিরি ‘এ’ । এই মুহূর্তে করোনা-ভাইরাসে বিশ্বে সবচেয়ে বেহাল অবস্থায় আছে ইটালি । ইতোমধ্যেই সেই দেশে করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃতের সংখ্যা প্রায় ষাট হাজার ছুঁই ছুঁই । জুভেন্টাসে রোনালদো সহযোদ্ধা ড্যানিয়েল রুগানি , ব্লেইস মাতুইদি আর পাওলো দিবালার মত তারকা করোনা-পজিটিভ হয়ে আইসোলেশনে ।

রোনালদো অবশ্য এমন সংকটময় মুহূর্তে অবস্থান করছেন নিজ দেশ পর্তুগালে । মায়ের স্ট্রোক হবার খবর শুনে জন্মভূমিতে ছুটে যান সিআর-সেভেন । সেখানেই আছেন ‘হোম-কোয়ারেন্টাইন’ অবস্থায় । ঘরেও অবশ্য বসে নেই রোনালদো । অতীতের মত মানুষের সাহায্যে আরও একবার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে বড় সুপারস্টার ।

ইতোমধ্যেই রোনালদো আর মেন্ডেস মিলে পর্তুগালের সবচেয়ে বড় শহর লিসবনে সান্তা মারিয়া হাসপাতালে ২০টি আইসিইউ বেড, ভেন্টিলেটর, হার্ট মনিটর, ইনফিউশন পাম্প ও সিরিঞ্জ দেন বলে জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর পর্তোর সান্ত আন্টরিও হাসপাতালে ১৫টি ইন্টেনসিভ কেয়ার বেড (আইসিইউ), ভীষণ প্রয়োজনীয় ভেন্টিলেটর, মনিটর, এবং অন্যান্য যন্ত্রপাতি দান করেছেন। এতে তৈরি হয় তিনটি ওয়ার্ড। যার নাম রাখা হয়েছে রোনালদো ও মেন্ডেসের নামে।

সান্ট আন্টরিও হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি পাউলো বারবসা এসব প্রয়োজনীয় জিনিস পেয়ে কৃতজ্ঞতা জানান রোনালদোদের প্রতি ।

রোনালদোর এজেন্ট মেন্ডেস নিজেও একজন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী । তার রয়েছে নানাবিধ ব্যবসা । আছে সামাজিক সংগঠন । সেই মেন্ডেসের সাথে হাত মিলিয়েই রোনালদো এগিয়ে এসেছেন মাতৃভূমির সহায়তায় । নেমেছেন করোনা-ভাইরাস প্রতিরোধ যুদ্ধে ।

আহাস/ক্রী/০০২