Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

বাদ দেয়া হয় নি মাহমুদুল্লাহকে !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট লড়াইয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ । টেস্ট ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে মিরপুরের শের-এ-বাংলা স্টেডিয়ামে । ইতোমধ্যেই আফ্রিকান প্রতিপক্ষের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচের দলে বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছে বিসিবি । ১৬ সদস্যের স্কোয়াডের নেতৃত্বে থাকছেন মুমিনুল হক । সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হবার পর তাকেই দেয়া হয়েছে টেস্ট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব ।

সর্বশেষ রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে বাংলাদেশ ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে । সেই টেস্ট ছিলেন না মুশফিকুর রহিম । জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দলে ফেরানো হয়েছে এই সিনিয়র খেলোয়াড়কে ।

দলে নেই সৌম্য সরকার , আল আমিন হোসেন । সৌম্য বিয়ের জন্য ছুটি নিয়েছেন জাতীয় দল থেকে । আর সামান্য ইনজুরিতে আছে আল আমিন । সেই কারণে ওয়ানডে সিরিজের আগে তাকে নিয়ে কোন ঝুঁকি নিচ্ছে না বিসিবি । সাদা পোশাকের ক্রিকেটে জাতীয় দলে নেই আরেক পেসার রুবেল হোসেন । ফিরেছেন অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজও। পাকিস্তানের বিপক্ষের টেস্টে জায়গা না পাওয়া পেসার মুস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদও ফিরেছেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

এছাড়া দলে নতুন মুখ হিসেবে এসেছেন ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী ও পেসার হাসান মাহমুদ।

তবে টেস্ট স্কোয়াডে সবচেয়ে বড় চমক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের না থাকা । সাম্প্রতিক সময়ে টেস্ট ক্রিকেটে একেবারেই ভাল করতে পারছেন না টি-২০ অধিনায়ক । সর্বশেষ ১০টি টেস্ট ইনিংসে তার আছে একটিমাত্র হাফসেঞ্চুরি । পাকিস্তানেও দ্বিতীয় ইনিংসে মেরেছেন গোল্ডেন-ডাক । সেই কারণে তাকে বাদ দিয়েই ঘোষণা করা হয়েছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াড ।

বাংলাদেশের কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো আগেই আভাস দিয়েছিলেন , জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে মাহমুদুল্লাহর না থাকার কথা । এমনকি টাইগার কোচ রিয়াদকে পরামর্শ দিয়েছেন , টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে সীমিত ওভারের খেলায় মনোযোগী হতে ।

সেই কারণেই প্রশ্ন উঠেছে , মাহমুদুল্লাহকে কি দল থেকে একেবারেই বাদ দেয়া হয়েছে ? নাকি সাময়িক বিশ্রাম দেয়া হয়েছে তাকে ?

বিসিবি’র প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানিয়েছেন , ‘ দল থেকে বাদ পড়েন নি মাহমুদুল্লাহ । তাকে আসলে বিশ্রাম দেয়া হয়েছে । ‘

টানা খেলার ধকল এড়াতে মাঝেমধ্যেই খেলোয়াড়দের বিশ্রাম দিয়ে থাকে টিম ম্যানেজমেন্ট। আর দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের ক্ষেত্রে তা বেশ স্বাভাবিক। তবে বাংলাদেশের কোচের কথায় মাহমুদুল্লাহর বাদ পড়া নিয়ে নানান গুঞ্জনের সৃষ্টি ।

অবশ্য মাহমুদউল্লাহ না থাকার ব্যাখ্যায় মিনহাজুল বললেন, ‘আমরা ওকে এই সিরিজ থেকে বিশ্রাম দিয়েছি। ঘরের মাটিতে খেলা। তাই নতুন কিছু খেলোয়াড়কে আমরা যাচাই করতে চাই। কিছু খেলোয়াড়কে আমরা পাকিস্তান সফরের জন্য নিয়েছিলাম। সেজন্য একটা বা দুইটা টেস্ট ম্যাচ খেলেছে এমন খেলোয়াড় আছে… আর অবশ্যই আমরা মাহমুদউল্লাহকে বিশ্রাম দিয়েছি।’

বর্তমানে দেশের একমাত্র ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক প্রথম শ্রেণির আসর বিসিএল চলছে। সেখানে মাহমুদউল্লাহ খেলবেন কি-না জানতে চাইলে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘অবশ্যই, বিসিএলে খেলার জন্য সে থাকছে।’

২০১৮ সালের নভেম্বরে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই প্রায় ৯ বছর পর টেস্ট সেঞ্চুরির দেখা পান মাহমুদউল্লাহ। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা দুই সিরিজে সেঞ্চুরি করেন। ঢাকায় ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ১৩৬ রানের আত্মবিশ্বাস নিয়ে যান নিউজিল্যান্ড সফরে। হ্যামিল্টনে ক্যারিয়ার সেরা ১৪৬ রানের পর ওয়েলিংটনে দ্বিতীয় ইনিংসে করেন ৬৭।

কিন্তু সর্বশেষ চার টেস্টে কোনও ফিফটি নেই মাহমুদউল্লাহর। এই ৮ ইনিংসে তার সর্বোচ্চ রান অপরাজিত ৩৯, কলকাতায় ভারতের বিপক্ষে। রাওয়ালপিন্ডিতে নাসিম শাহর হ্যাটট্রিক বলের সামনে যেভাবে স্লিপে ক্যাচ দিয়েছেন, তা রীতিমতো দৃষ্টিকটু।

মাহমুদউল্লাহর বাদ পড়া তাই অপ্রত্যাশিত ঘটনা নয়। প্রধান নির্বাচক অবশ্য বলছেন অন্য কথা, ‘এটাকে বাদ বলা যাবে না। সে সিনিয়র খেলোয়াড়, তাই আমরা তাকে বিশ্রাম দেওয়ার চিন্তা করেছি। ঘরের মাঠে খেলা, তাই কয়েকজন নতুন খেলোয়াড়কে যাচাই করার কথাও ভেবেছি।’

মাহমুদুল্লাহর ‘অবসর’ নিয়ে কোচের কথার ব্যাক্ষা দিয়ে নান্নু জানান , ‘ এমন কোন কথা কোচ বলে নি । তার কথার অন্যরকম ব্যাখ্যা করা হয়েছে । আমরা জানি , রাসেল (বাংলাদেশের কোচ) কি বলেছে । তার কথার সময় আমরা সামনেই ছিলাম । ‘

তবে পাকিস্তানে সবশেষ রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে নাসিম শাহর হ্যাটট্রিক বলে যেভাবে উদ্ভটভাবে আউট হয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ, তাতে এ সংস্করণে তার মনোযোগের অভাব দেখা দিয়েছে স্পষ্টভাবে। এটা চোখ এড়ায়নি কোচ, নির্বাচক থেকে টিম ম্যানেজমেন্টের কারোরই। আপাতত টেস্টে তাকে বিবেচনা করতে চাইছেন না তারা। তাই ঘরোয়া ক্রিকেটে নিজেকে প্রমাণ করে আবারও জাতীয় দলে সাদা পোশাকে ফেরার জন্যই বিসিএলে খেলছেন মাহমুদউল্লাহ।

এর আগেও বিশ্রামের অজুহাতে বাদ দেওয়া হয়েছিল মাহমুদউল্লাহকে। শ্রীলঙ্কার মাটিতে ২০১৭ সালে বাংলাদেশের শততম টেস্টের আগে হুট করেই তাকে বাদ দেওয়া হয়। এরপর আবার অধিনায়ক করেও ফেরানো হয়। এখন দেখার বিষয়, শেষ পর্যন্ত কত দিন বিশ্রামে থাকেন মাহমুদউল্লাহ।

১৬ সদস্যের বাংলাদেশ দল :

মুমিনুল হক  (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল খান, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মো. মিথুন, লিটন কুমার দাস, তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী, নাঈম হাসান, এবাদত হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মুস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ ও ইয়াসির আলী চৌধুরী।

আহাস/ক্রী/০০৫