Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

এসএ গেমসে বাংলাদেশের প্রথম সোনার পদক

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

নেপালের কাঠমুণ্ডুতে চলমান দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এসএ) বাংলাদেশের সোনার পদক জয়ের অপেক্ষার অবসান ঘটেছে । দক্ষিণ এশিয়ার সেরা ক্রীড়া প্রতিযোগিতার ১৩তম আসরে বাংলাদেশের জন্য প্রথম সোনার পদক এনে দিয়েছেন দিপু চাকমা। তায়কোয়ান্দোতে এই পুরস্কারটি জেতেন তিনি।

সোমবার (২ ডিসেম্বর) সকালেই বাংলাদেশের জন্য আসে প্রথম সুখবর । এদিন বাংলাদেশের হয়ে আসরের প্রথম পদক জেতেন হুমায়রা আক্তার অন্তরা। তবে সেটি ছিল ব্রোঞ্জ। এরপরেই আসে দিপুর হাত ধরে বাংলাদেশের প্রথম সোনার পদক জয়ের দারুণ সুখবরটি ।

হিমালয় কন্যা নেপালে তায়কোয়ান্দো দো হলে পুরুষ একক পুমসায় ঊর্ধ্ব-২৯ কেজি শ্রেণিতে সোনার পদক জেতেন দিপু । সোনা জয়ের পথে ভারতের প্রতিযোগীকে হারান তিনি ।

তার স্কোর ছিল ১৬.২৪। এই সোনা জয়ের জন্য দিপুকে এক এক করে হারাতে হয় শ্রীলঙ্কা, ভারত, পাকিস্তান ও নেপালের প্রতিযোগীদের।

প্রথমবার অংশ নিয়ে দেশকে প্রথমবার সোনা এনে দেয়ার অনুভূতিটা নিশ্চিতভাবেই অন্যরকম। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দিপু বলেন- ‘খুবই ভালো লাগছে। ঘোরের মধ্যে আছি। বাংলাদেশকে প্রথম সোনা উপহার দিতে পেরে আমি গর্বিত। ১৯ বছর অনুশীলন করে এই সোনার দেখা পেলাম। আরও একটি ইভেন্টে অংশ নেবো। আশা করি, ভালো কিছুই হবে।’

এসএ গেমসের বাইরে ক্যারিয়ারে আরও ৫টি সোনা ও ১টি আন্তর্জাতিক রৌপ্য জয় করেছেন দিপু।

দিপু ছাড়াও তায়কোয়ান্দো থেকে এদিন আরও দুটি ব্রোঞ্জ জিতেছে বাংলাদেশ। ১৩তম এসএ গেমসের দ্বিতীয় দিনে তিন ব্রোঞ্জ আর এক স্বর্ণসহ এখন পর্যন্ত ছয়টি পদক জিতে নিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা।

এর আগে বাংলাদেশকে প্রথম পদক এনে দেন অন্তরা। কারাতের কাতা একক ইভেন্টে তৃতীয় হয়ে ব্রোঞ্জ জেতেন তিনি। এই ইভেন্টে স্বর্ণ জিতেছেন পাকিস্তানের শাইদা। আর দ্বিতীয় হয়ে রোপ্য পদক জেতেন স্বাগতিক নেপালের এক প্রতিযোগী।

ছেলেদের একক কাতায় বাংলাদেশের হাসান খান ব্রোঞ্জ জিতেছেন।

১ ডিসেম্বর এসএ গেমসের ত্রয়োদশতম আসর শুরু হয়। এবারে ২৬টি ডিসিপ্লিনের মধ্যে ২৫টিতে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ। এই আসরে বাংলাদেশের পদক বিজয়ী প্রত্যেক ক্রীড়াবিদের জন্য আর্থিক পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়।

এবার সর্বোচ্চ পদক জয়ের আশা নিয়ে নেপাল গিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা। বাংলাদেশ এবার পাঠিয়েছে ৫৯৫ সদস্যের বিশাল বহর। এদের মধ্যে ক্রীড়াবিদ ৪৬২ জন এবং কর্মকর্তা ১৩৩ জন। একটি ডিসিপ্লিন (ট্রাইলথন) বাদে বাকি সবকটিতে অংশ নিচ্ছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

আহাস/ক্রী/০০২