Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

ডুমিনি ঝড়ের পর লামিচান্নে ম্যাজিকে জিতলো বার্বাডোস

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

মাত্র একদিন আগেই ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগের রেকর্ড রান তাড়া করে ক্রিস গেইলদের জ্যামাইকা তালাওয়াশকে হারিয়েছিল সেইন্ট কিটস এন্ড ন্যাভাল প্যাট্রিয়টস । কিন্তু পরের ম্যাচেই তারা ১৮ রানে হেরে গেছে বার্বাডোস ট্রিডেন্টসের কাছে । জেসন হোল্ডারের বার্বাডোসকে দারুণ এই জয় পেতে বল হাতে সহায়তা করেন নেপালের স্পিনার সন্দ্বীপ লামিচান্নে ।

বুধবার সেইন্ট কিটসে অনুষ্ঠিত ম্যাচের শুরুতে ব্যাট করা বার্বাডোস তোলে ২ উইকেটে ১৮৬ রান । জবাবে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৬৮ রান তুলে থামে স্বাগতিক সেইন্ট কিটসের লড়াই ।

রান তাড়ায় নামা সেইন্ট কিটসের বিপক্ষে দারুণ বোলিং করেছেন সন্দ্বীপ লামিচান্নে । এই ১৯ বছর বয়সী লেগ ব্রেক স্পিনার নেন চার ওভারে ২২ রান দিয়ে তিনটি উইকেট । সর্বোচ্চ রান করা লরি ইভান্স আর কার্লোস ব্রাথওয়েটের মত তারকাকে আউট করে তিনি এনে দেন দলের জয় । সাথে পান সামারাহ ব্রুক্সের উইকেটটিও । ফলে জয়ের নায়ক লামিচান্নে হয়ে যান ‘ম্যান অফ দা ম্যাচ ‘ ।

এছাড়াও বার্বাডোস অধিনায়ক জেসন হোল্ডার নিয়েছেন দুইটি উইকেট ।

সেইন্ট কিটসের আগের ম্যাচ জয়ের অন্যতম নায়ক লরি ইভান্স এই ম্যাচেও চেষ্টা করেছেন । তিনি করেন ৪১ বলে ১০টি চার আর ১টি ছক্কায় ৬৪ রান । কিন্তু তার সেই চেষ্টা সফল হয় নি এবার অন্যদের সহায়তা না পাওয়ায় ।

শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে নামা ডমিনিক ড্রেক্স একটা অসম্ভব চেষ্টা করেছিলেন । মাত্র ১৪ বলে তিনি করেন ৩৪ রান । তার ইনিংসে ছিল তিনটি করে চার আর ছক্কা । সিপিএলে এটা ১১ নাম্বার কোন ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ রান ।

এর আগে বার্বাডোসের হয়ে ওপেনার এলেক্স হেইলস (১৮) ছাড়া সবাই রান পেয়েছেন । ৪৩ বলে ৫২ রান করেন আরেক ওপেনার জনসন চার্লস । তার ইনিংসে ছিল চারটি চার আর তিনটি ছক্কা ।

উইকেট কিপার লেনিকো বাউচার করেছেন অপরাজিত ৬২ রান । ৪৭ বল খেলে তিনিও মেরেছেন চারটি চারের সাথে তিনটি ছক্কা ।

চার নাম্বার ব্যাটসম্যান হিসেবে নামা জেপি ডুমিনি তোলেন দারুণ ঝড় । মাত্র ১৮ বলে ৪৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছেন তিনি । তার ব্যাট থেকে আসে দুইটি চার আর চারটি ছক্কা ।

দুই ম্যাচে বার্বাডোসের এটি প্রথম জয় । অন্যদিকে সেইন্ট কিটস চার  ম্যাচে দেখলো তৃতীয় পরাজয়ের মুখ । 

আহাস/ক্রী/০০১