Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes

আর এক ম্যাচ খেলেই ভারতীয় দল থেকে ধোনির অবসর !

ক্রীড়ালোক প্রতিবেদকঃ

চলমান আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব অনেকটাই শেষ পর্যায়ে । ইতোমধ্যেই চলতি বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে খেলা নিশ্চিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া , ভারত আর ইংল্যান্ডের । সেমি ফাইনালের চক্র পূরণে এখন লড়াইয়ে আছে কেবল নিউজিল্যান্ড আর পাকিস্তান ।

ইংল্যান্ডের চলমান বিশ্বকাপ ক্রিকেটে দারুণ খেলছে ভারত । একমাত্র ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটি ছাড়া জিতেছে সব ম্যাচেই (নিউজিল্যান্ডের সাথে বৃষ্টিতে ম্যাচ পরিত্যক্ত বাদে) । বিশ্বকাপে ভারতের অধিনায়ক হিসেবে বিরাট কোহলি থাকলেও কার্যত নেতৃত্ব দিচ্ছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি । মুলত সাবেক অধিনায়কের ক্ষুরধার মস্তিস্কের গুণেই তৃতীয় শিরোপার লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে টিম ইন্ডিয়া ।

কিন্তু খুব বেশীদিন আর ধোনির থাকা হচ্ছে না ভারতীয় দলের সাথে । এবারের বিশ্বকাপের পরেই ভারতীয় দল থেকে অবসরের ঘোষণা দিতে পারেন তিনি । সেই হিসেবে এবারের বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালই হতে পারে ভারতের হয়ে ধোনির শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ । অবশ্যই যদি ভারত ফাইনালে উঠতে না পারে । আর ফাইনালে উঠলে আরও একটি ম্যাচ বেশী খেলার সুযোগ পাচ্ছেন ভারতের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক । 

তবে মোট কথা হচ্ছে , এবারের বিশ্বকাপ শেষেই  আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছেন ধোনি । এটা অনেকটাই নিশ্চিত । 

ধোনির অবসর নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ‘বিসিসিআই’র এক কর্মকর্তা জানান , বিশ্বকাপের পরে তার খেলা চালিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ ।

এবারের বিশ্বকাপে অবশ্য কিছুটা সমালোচনার মুখে রয়েছেন ধোনি। ব্যাটে তেমনভাবে রান পাচ্ছেন না। স্লো ব্যাটিংয়ের জন্যই বেশি সমালোচিত হচ্ছেন। বিশেষ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার ব্যাটিংয়ের পর ভারতের হারে ধোনির সমালোচনায় মুখর ক্রিকেট বিশ্বই। তার স্লো ব্যাটিংয়ের পর ভারতের হারে প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। এছাড়াও নিজের ব্যাটে ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিশেষ ‘লোগো’ ব্যবহার করেও আইসিসি’র আপত্তির মুখে পড়েন ‘মিস্টার ফিনিশার’ ।

ধোনির ব্যাট-প্যাড তুলে রাখার কথা নিশ্চিত করে এক প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার বলছেন, ‘টিম ম্যানেজমেন্ট ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির পরে আলোচনায় বসেছিল। তখনই সিদ্ধান্ত হয় আরও দু’বছর ধোনিকে দেয়া হবে। ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত তাকে রাখা উচিত। এদিকে ভারত সেমিফাইনালে পৌঁছেছে। কিন্তু ধোনি থেকে তেমন ভালো পারফরম্যান্স পাওয়া যায়নি। কেউ ওকে অবসর নিতে বলবে না ঠিকই, কিন্তু বিশ্বকাপের পরে যে পরিস্থিতি এরকম থাকবে না ধোনি সেটা আঁচ পেয়েছে।’

২০০৪ সালে চট্টগ্রামের এম.এ. আজিজ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয় মহেন্দ্র সিং ধোনির। এরপর একে একে ১৫টি বছর ভারতের জার্সি গায়ে ২২ গজ শাসন করেছেন তিনি। এর মধ্যে প্রায় ৭ বছর দলকে নেতৃত্বও দিয়েছেন তিনি। দলকে জিতিয়েছেন ২০০৭ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপ, ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ও ২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির শিরোপা। অর্থাৎ, ধোনি যুগে ভারত আইসিসি আয়োজিত সকল শিরোপার স্বাদই পেয়েছে।

আহাস/ক্রী/০০৪